Zechariah 1

1দারিয়াবসের রাজত্বের দ্বিতীয় বছরের অষ্টম মাসে সদাপ্রভুর বাক্য নবী সখরিয়ের কাছে প্রকাশিত হল। সখরিয় ছিলেন বেরিখিয়ের ছেলে আর বেরিখিয় ইদ্দোর ছেলে। 2সদাপ্রভু সখরিয়কে বললেন, “তোমাদের পূর্বপুরুষদের উপর আমি খুবই অসন্তুষ্ট হয়েছিলাম। 3সেইজন্য তুমি লোকদের বল যে, আমি সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু বলছি, ‘তোমরা আমার দিকে ফেরো, তাতে আমিও তোমাদের দিকে ফিরব। 4তোমরা তোমাদের পূর্বপুরুষদের মত হোয়ো না। তাদের কাছে আগেকার নবীরা আমার এই কথা ঘোষণা করেছিল যে, তারা যেন তাদের মন্দ পথ ও মন্দ অভ্যাস থেকে ফেরে। কিন্তু তারা তা শোনে নি এবং আমার কথায় মনোযোগও দেয় নি। 5তোমাদের সেই পূর্বপুরুষেরা এখন কোথায়? আর নবীরা কি চিরকাল বেঁচে থাকে? 6কিন্তু আমি আমার দাসদের, অর্থাৎ নবীদের যে সব আদেশ দিয়েছিলাম, আমার সেই সব বাক্য ও নিয়ম অনুসারে কি তোমাদের পূর্বপুরুষেরা শাস্তি পায় নি? তখন তারা মন ফিরিয়ে বলেছিল যে, সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু তাদের আচার-ব্যবহার ও অভ্যাস অনুসারে তাদের প্রতি যা করবেন বলে ঠিক করেছিলেন তিনি তা-ই করেছেন।’ ” 7দারিয়াবসের রাজত্বের দ্বিতীয় বছরের এগারো মাসের, অর্থাৎ শবাট মাসের চব্বিশ দিনের দিন বেরিখিয়ের ছেলে নবী সখরিয়ের কাছে সদাপ্রভুর বাক্য প্রকাশিত হল। 8রাতের বেলায় আমি সখরিয় একটা দর্শন পেলাম। আমি দেখলাম, মানুষের মত দেখতে একজন স্বর্গদূত লাল ঘোড়ার উপরে চড়ে আছেন। ঘোড়াটা একটা খাদের ভিতরে গুলমেঁদি গাছগুলোর মাঝখানে দাঁড়িয়ে আছে। লোকটির পিছনে আছে লাল, মেটে ও সাদা রংয়ের কতগুলো ঘোড়া। 9আমি জিজ্ঞাসা করলাম, “হে আমার প্রভু, এগুলো কি?” আর একজন স্বর্গদূত যিনি আমার সংগে কথা বলছিলেন উত্তরে তিনি বললেন, “ওগুলো কি তা আমি তোমাকে দেখাব।” 10যিনি গুলমেঁদি গাছগুলোর মাঝখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন তিনি আমাকে বললেন, “সারা পৃথিবীতে ঘুরে দেখবার জন্য সদাপ্রভু এগুলোকে পাঠিয়েছেন।” 11সদাপ্রভুর যে দূত গুলমেঁদি গাছগুলোর মাঝখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন তাঁকে ঘোড়সওয়ারেরা বলল, “আমরা সারা পৃথিবীতে ঘুরে দেখলাম যে, গোটা জগতটা নির্ভয়ে ও শান্তিতে রয়েছে।” 12তখন সদাপ্রভুর দূত বললেন, “হে সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু, তুমি যিরূশালেম ও যিহূদার অন্যান্য শহরগুলোর উপর এই যে সত্তর বছর অসন্তুষ্ট হয়ে রয়েছ তাদের উপর আর কতকাল তুমি মমতা না করে থাকবে?” 13তখন যে স্বর্গদূত আমার সংগে কথা বলছিলেন সদাপ্রভু তাঁকে অনেক মংগলের ও সান্ত্বনার কথা বললেন। 14সেইজন্য সেই স্বর্গদূত আমাকে বললেন, “তুমি এই কথা ঘোষণা কর যে, সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু বলছেন, ‘যিরূশালেমের জন্য, অর্থাৎ সিয়োনের জন্য আমি অন্তরে খুব জ্বালা বোধ করছি। 15আমি নিশ্চিন্তে থাকা সেই সব জাতির উপরে ভীষণ অসন্তুষ্ট হয়েছি, কারণ আমি যখন আমার লোকদের উপর কেবল একটুখানি অসন্তুষ্ট হয়েছিলাম তখন সেই সব জাতি আমার লোকদের দুর্দশার সংগে আরও দুর্দশা যোগ করেছিল। 16সেইজন্য আমি যিরূশালেমকে মমতা করবার জন্য ফিরে আসব। সেখানে আমার ঘর আবার তৈরী হবে এবং যিরূশালেম শহরকে মেপে আবার গড়ে তোলা হবে। 17আমি সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু এই প্রতিজ্ঞা করছি যে, আমার শহরগুলোতে আবার মংগল উপ্‌চে পড়বে আর আমি আবার সিয়োনকে সান্ত্বনা দেব এবং আবার যিরূশালেমকে বেছে নেব।’ ” 18তারপর আমি চোখ তুলে চারটা শিং দেখতে পেলাম। 19যে স্বর্গদূত আমার সংগে কথা বলছিলেন আমি তাঁকে জিজ্ঞাসা করলাম, “এগুলো কি?” উত্তরে তিনি আমাকে বললেন, “এগুলো সেই শিং যা যিহূদা, ইস্রায়েল ও যিরূশালেমের লোকদের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে দিয়েছে।” 20সদাপ্রভু তারপর আমাকে চারজন মিস্ত্রীকে দেখালেন। 21আমি জিজ্ঞাসা করলাম, “এরা কি করতে এসেছে?” উত্তরে তিনি বললেন, “সেই শিংগুলো হল সেই সব জাতির শক্তি যারা যিহূদার লোকদের এমনভাবে ছড়িয়ে দিয়েছে যে, তারা কেউই মাথা তুলতে পারে নি। সেই সব জাতিকে ভয় দেখাবার জন্য ও তাদের শক্তি ধ্বংস করবার জন্য এই মিস্ত্রীরা এসেছে।”

will be added

X\