Psalms 68

1ঈশ্বর উঠুন, তাঁর শত্রুরা ছড়িয়ে পড়ুক আর তাঁর বিপক্ষেরা তাঁর সামনে থেকে পালিয়ে যাক। 2ধূমার মত করে তুমি তাদের উড়িয়ে দাও; আগুনের সামনে গলে যাওয়া মোমের মত দুষ্টেরা ঈশ্বরের সামনে ধ্বংস হয়ে যাক। 3কিন্তু ঈশ্বরভক্তেরা খুশী হোক আর ঈশ্বরের সামনে আনন্দ করুক; তারা খুশীতে আনন্দ করুক। 4ঈশ্বরের উদ্দেশে গান কর, তাঁর প্রশংসা-গান গাও; মরু-এলাকার মধ্য দিয়ে যিনি রথে চড়ে আসছেন তাঁর জন্য উঁচু পথ তৈরী কর; তাঁর নাম সদাপ্রভু, তাঁর সামনে আনন্দ কর। 5ঈশ্বর তাঁর পবিত্র বাসস্থানে অনাথদের পিতা আর বিধবাদের পক্ষ গ্রহণকারী। 6নিজের বলতে যার কেউ নেই তাকে তিনি নিজের পরিবারের লোক করে তোলেন; বন্দীদের তিনি মুক্ত করে মংগলের মধ্যে নিয়ে যান, কিন্তু বিদ্রোহীরা রোদে পোড়া জমিতে বাস করে। 7হে ঈশ্বর, তুমি যখন মরু-এলাকার মধ্য দিয়ে তোমার লোকদের আগে আগে গিয়েছিলে, [সেলা] 8তখন পৃথিবী কেঁপে উঠেছিল আর আকাশ বৃষ্টি ঢেলেছিল। এ সব হয়েছিল ঈশ্বরের সামনে, সিনাইয়ের সেই ঈশ্বরের সামনে, ঈশ্বরেরই সামনে, ইস্রায়েলের ঈশ্বরের সামনে। 9হে ঈশ্বর, তুমি প্রচুর পরিমাণে বৃষ্টি দিয়েছিলে; শুকিয়ে ওঠা তোমার দেশকে তুমি সতেজ করে তুলেছিলে। 10তোমার নিজের লোকেরা তার মধ্যে বাসস্থান করেছিল; তোমার মংগল ইচ্ছায়, হে ঈশ্বর, তুমি তাদের অভাব মিটিয়েছিলে। 11প্রভু লোকদের আদেশ দেন; মংগলের খবর ঘোষণাকারী স্ত্রীলোকেরা সংখ্যায় অনেক। 12ঐ স্ত্রীলোকেরা বলে, “সৈন্যদলের রাজারা পালিয়ে যাচ্ছে, পালিয়ে যাচ্ছে, আর ঘরে থাকা স্ত্রীলোকেরা লুটের মাল ভাগ করে নিচ্ছে। 13চারপাশে ভেড়ার খোয়াড়ের মাঝখানে তোমরা যখন শুয়ে থাক, তখন তোমাদের এমন ঘুঘুর মত দেখতে লাগে যার ডানা রূপায় ঢাকা আর পালক সোনায় মোড়ানো। 14সর্বশক্তিমান ঈশ্বর যখন দেশের মধ্যে রাজাদের ছড়িয়ে দিলেন তখন সল্‌মোন পাহাড়ের উপর বরফ পড়ছিল।” 15বাশনের পাহাড়ের সারি অনেকখানি জায়গা জুড়ে রয়েছে; তার অনেকগুলো চূড়া। 16ওহে অনেক চূড়ার পাহাড়, ঈশ্বর যে পাহাড়কে নিজে থাকার জন্য বেছে নিয়েছেন তুমি হিংসার চোখ নিয়ে কেন তার দিকে চেয়ে আছ? সেটাই তো সদাপ্রভুর চিরকালের বাসস্থান। 17ঈশ্বরের রথ হাজার হাজার, লক্ষ লক্ষ; প্রভু সেগুলোর মধ্যে পবিত্র জায়গায় আছেন, যেমন তিনি সিনাই পাহাড়ে ছিলেন। 18যখন তুমি স্বর্গে উঠলে তখন পরাজিত বন্দীদের চালিয়ে নিয়ে গেলে। লোকদের মধ্যে, এমন কি, বিদ্রোহীদের মধ্যে থাকার সময় তোমার কাছে অনেক দান এসেছিল, যাতে তুমি, হে সদাপ্রভু ঈশ্বর, তাদের মধ্যে থাকতে পার। 19ধন্য প্রভু, তিনি প্রতিদিনই আমাদের বোঝা বইছেন; তিনিই আমাদের উদ্ধারকর্তা ঈশ্বর। [সেলা] 20আমাদের ঈশ্বর এমন ঈশ্বর যিনি উদ্ধার করেন; প্রভু সদাপ্রভু মৃত্যু থেকে রক্ষা করেন। 21ঈশ্বর নিঃসন্দেহে তাঁর শত্রুদের মাথা চুরমার করে দেবেন; যারা পাপে পড়ে থাকে সেই সব লোকদের চুলে ভরা মাথা তিনি চুরমার করে দেবেন। 22প্রভু বললেন, “আমি বাশন দেশ থেকে তাদের নিয়ে আসব; সমুদ্রের তলা থেকে তাদের তুলে আনব, 23যাতে তোমার পা তোমার শত্রুদের রক্ত দলে যায় আর তোমার কুকুরগুলো যেন তা ইচ্ছামত চেটে খেতে পারে।” 24হে ঈশ্বর, লোকে তোমার উৎসব-যাত্রা দেখেছে, দেখেছে পবিত্র জায়গার দিকে আমার ঈশ্বরের যাত্রা, যিনি আমার রাজা। 25প্রথমে যাচ্ছে গায়কেরা, তাদের পিছনে যাচ্ছে বাজনা বাদকেরা; খঞ্জনি-বাজানো মেয়েদের মাঝখানে তারা চলেছে। 26তোমাদের সব সভার মধ্যে ঈশ্বরের গৌরব কর; তোমরা যারা ইস্র্রায়েল-বংশের লোক, তোমরা সদাপ্রভুর গৌরব কর। 27সবার ছোট যে বিন্যামীন, ঐ যাচ্ছে তার বংশ, যাদের হাতে আছে রাজদণ্ড; ঐ যে যিহূদার নেতারা, যারা দলে ভারী; ঐ যে সবূলূনের নেতারা আর ঐ যায় নপ্তালির নেতারা। 28তোমার ঈশ্বরের কাছ থেকে তোমার শক্তি এসেছে। হে ঈশ্বর, তোমার শক্তি দেখাও, আগে যেমন তুমি আমাদের পক্ষে কাজ করে দেখিয়েছিলে। 29যিরূশালেমে তোমার ঘর আছে; সেখানেই রাজারা তোমার কাছে উপহার নিয়ে যাবে। 30তাদের এবং তাদের আনা রূপার টুকরাগুলো পায়ে দলে ফেলে নলবনের বুনো জন্তু ঐ মিসরকে তুমি ধম্‌কে দাও; ধম্‌কে দাও বাছুর ও বলদের দলের মত ঐ সব জাতিদের। যে সব জাতি যুদ্ধ ভালবাসে ঈশ্বর তাদের দল ভেংগে দিয়েছেন। 31মিসর থেকে রাজদূতেরা আসবেন; কূশ তাড়াতাড়ি করে ঈশ্বরের কাছে হাত বাড়িয়ে দেবে। 32হে পৃথিবীর সব রাজ্য, ঈশ্বরের উদ্দেশে গান কর, প্রভুর উদ্দেশে প্রশংসার গান গাও। [সেলা] 33তিনি সেই পুরানো দিনের আকাশের মধ্য দিয়ে রথে চড়ে চলাচল করেন। শোন, তিনি জোর গলায় কথা বলছেন। 34ঘোষণা কর, ঈশ্বর শক্তিমান; তাঁর মহিমা ইস্রায়েলের উপর রয়েছে আর আকাশ জুড়ে রয়েছে তাঁর শক্তি। 35হে ঈশ্বর, তোমার পবিত্র জায়গায় তোমার উপস্থিতি ভক্তিপূর্ণ ভয় জাগিয়ে তোলে। ইস্রায়েলের ঈশ্বর তাঁর লোকদের শক্তি ও ক্ষমতা দিয়ে থাকেন। ঈশ্বরের গৌরব হোক!

will be added

X\