Numbers 5

1সদাপ্রভু মোশিকে বললেন, 2“তুমি ইস্রায়েলীয়দের এই আদেশ দাও যেন তারা ছাউনি থেকে এমন সব লোকদের সরিয়ে দেয় যাদের কোন চর্মরোগ রয়েছে কিম্বা যাদের দেহ থেকে কোন রকম স্রাব হচ্ছে কিম্বা মৃতদেহের দরুন যারা অশুচি হয়ে পড়েছে। 3সে স্ত্রীলোক হোক বা পুরুষ হোক তাকে সরিয়ে দিতে হবে। এই সব লোকেরা যাতে ছাউনি অশুচি না করে সেইজন্য ছাউনি থেকে তাদের বাইরে সরিয়ে দিতে হবে, কারণ সেখানে আমি ইস্রায়েলীয়দের মধ্যে বাস করি।” 4ইস্রায়েলীয়েরা তা-ই করল। তারা সেই সব লোকদের ছাউনির বাইরে সরিয়ে দিল। সদাপ্রভু মোশিকে যে নির্দেশ দিয়েছিলেন ইস্রায়েলীয়েরা তা-ই করেছিল। 5পরে সদাপ্রভু মোশিকে বললেন, 6“তুমি ইস্রায়েলীয়দের বল, মানুষ সাধারণত যে সব পাপ করে তার কোন একটা করে যদি কোন পুরুষ বা স্ত্রীলোক সদাপ্রভুর প্রতি অবিশ্বস্ত হয় তবে তাকে দোষী বলে ধরা হবে। 7সে যে পাপ করেছে তা তাকে স্বীকার করতে হবে। সে যার উপর অন্যায় করেছে তাকে তার অন্যায়ের পুরো ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। যে জিনিস সম্বন্ধে সে অন্যায় করেছে সেই জিনিসের দামের সংগে আরও পাঁচ ভাগের এক ভাগ দাম যোগ করে তাকে দিতে হবে। 8ক্ষতিপূরণ নেবার জন্য যদি সেই লোকের কোন নিকট আত্মীয় না থাকে তবে তা সদাপ্রভুর পাওনা হবে। সেই ক্ষতিপূরণ এবং তার পাপ ঢাকা দেবার ভেড়াটা পুরোহিতকে দিতে হবে। 9যে সব পবিত্র জিনিস ইস্রায়েলীয়েরা পুরোহিতের কাছে নিয়ে আসবে তা সবই পুরোহিতের হবে। 10প্রত্যেকের উৎসর্গ করা জিনিস পুরোহিতের হবে। পুরোহিতের হাতে দেওয়া জিনিস পুরোহিতেরই হবে।” 11এর পর সদাপ্রভু মোশিকে বললেন, “তুমি ইস্রায়েলীয়দের জানিয়ে দাও, যদি কারও স্ত্রী কুপথে যায় এবং স্বামীর প্রতি অবিশ্বস্ত হয়ে অন্য পুরুষের সংগে ব্যভিচার করে অসতী হয়, আর তা যদি তার স্বামীর অজানা থাকে এবং তা গোপন থেকে যায়- কারণ তার বিরুদ্ধে কোন সাক্ষী নেই এবং সেই কাজে সে ধরাও পড়ে নি- 14কিন্তু তবুও যদি স্ত্রীর উপর সন্দেহে স্বামীর মন বিষিয়ে ওঠে তবে সে তাকে পুরোহিতের কাছে নিয়ে যাবে; স্ত্রী যদি অসতী না-ও হয় তবুও সন্দেহ হলে স্বামীর তাকে পুরোহিতের কাছে নিয়ে যেতে হবে। সেই সংগে তার স্ত্রীর হয়ে উৎসর্গ করবার জন্য তাকে এক কেজি আটশো গ্রাম যবের ময়দাও নিয়ে যেতে হবে। সে এর উপর কোন তেল বা লোবান দেবে না কারণ এটা সন্দেহের দরুন শস্য-উৎসর্গ, অর্থাৎ সদাপ্রভুর কাছে অন্যায় তুলে ধরবার উৎসর্গ। 16“পুরোহিত সেই স্ত্রীলোকটিকে সদাপ্রভুর সামনে দাঁড় করাবে। 17তারপর সে একটা মাটির পাত্রে কিছু পবিত্র জল নেবে এবং আবাস-তাম্বুর মেঝে থেকে কিছু ধূলা তুলে নিয়ে সেই জলের মধ্যে দেবে। 18স্ত্রীলোকটিকে সদাপ্রভুর সামনে দাঁড় করাবার পর পুরোহিত তার চুল খুলে দেবে এবং অন্যায় তুলে ধরবার জন্য আনা উৎসর্গের জিনিস, অর্থাৎ সন্দেহের দরুন শস্য-উৎসর্গের জিনিস তার হাতে দেবে। পুরোহিত তার নিজের হাতে রাখবে অভিশাপ নিয়ে আসা তেতো জল। 19তারপর পুরোহিত স্ত্রীলোকটিকে শপথ করিয়ে নিয়ে তাকে বলবে, ‘বিয়ের পর কোন লোক যদি তোমার সংগে ব্যভিচার না করে থাকে এবং তুমি যদি কুপথে গিয়ে অসতী না হয়ে থাক তবে অভিশাপ আনা এই তেতো জল যেন তোমার কোন ক্ষতি না করে। 20কিন্তু বিয়ের পর কুপথে গিয়ে কারও সংগে ব্যভিচার করে যদি তুমি অসতী হয়ে থাক’- 21এই পর্যন্ত বলে পুরোহিত সেই স্ত্রীলোকটিকে দিয়ে তার নিজের উপর অভিশাপ ডেকে আনবার একটা শপথ করিয়ে নিয়ে আবার বলবে, ‘তবে সদাপ্রভু এমন করুন যাতে স্ত্রী-অংগ অকেজো হয়ে তোমার পেট ফুলে ওঠে, যার ফলে তোমার লোকেরাই অভিশাপ এবং শপথের সময়ে তোমার নাম ব্যবহার করবে। 22এই অভিশাপের জল তোমার দেহে ঢুকে যেন এমনভাবে কাজ করে যাতে তোমার পেট ফুলে ওঠে ও তোমার স্ত্রী-অংগ অকেজো হয়ে যায়।’ “এর উত্তরে স্ত্রীলোকটিকে বলতে হবে, ‘তা-ই হোক।’ 23“পুরোহিত এই সমস্ত অভিশাপ চামড়ার উপর লিখে জল ঢেলে লেখাটা সেই তেতো জলে ফেলবে। 24অভিশাপের সেই তেতো জল সেই স্ত্রীলোকটিকে খাওয়ালে পর সেই জল তার পেটে গিয়ে তাকে ভীষণ যন্ত্রণা দেবে। 25প্রথমে পুরোহিত স্ত্রীলোকটির হাত থেকে সন্দেহের দরুন আনা সেই শস্য-উৎসর্গ নিয়ে সদাপ্রভুর সামনে দুলিয়ে তা বেদীর কাছে নিয়ে যাবে। 26পুরোহিত তারপর পুরো উৎসর্গের বদলে তা থেকে এক মুঠো তুলে নিয়ে বেদীর উপর পুড়িয়ে দেবে। তারপর সে সেই জল স্ত্রীলোকটিকে খেতে দেবে। 27স্ত্রীলোকটি যদি অসতী হয়ে স্বামীর প্রতি অবিশ্বস্ত হয়ে থাকে তবে অভিশাপের এই জল তাকে খাওয়াবার পর তা তার পেটে গিয়ে তাকে ভীষণ যন্ত্রণা দেবে। তার পেট ফুলে উঠবে এবং স্ত্রী-অংগ অকেজো হয়ে যাবে আর তার লোকেরা তার নাম অভিশাপ হিসাবে ব্যবহার করবে। 28কিন্তু স্ত্রীলোকটি যদি অসতী না হয়ে নির্দোষ থাকে তবে তাকে যে দোষ দেওয়া হয়েছিল তা থেকে সে খালাস পাবে এবং সন্তানের মা হবার ক্ষমতা তার থেকেই যাবে। 29“কোন স্ত্রীলোক বিয়ের পরে যদি কুপথে গিয়ে অসতী হয় কিম্বা যদি কোন পুরুষের মন স্ত্রীর উপর সন্দেহে বিষিয়ে ওঠে তবে এই নিয়মে তার ব্যবস্থা করতে হবে। স্বামী তার স্ত্রীকে সদাপ্রভুর সামনে নিয়ে যাবে আর পুরোহিত এই পুরো ব্যবস্থাটাই তার উপর খাটাবে। 31এতে স্বামী অন্যায় করবার নালিশ থেকে মুক্ত থাকবে, কিন্তু অন্যায় করে থাকলে স্ত্রীলোকটি তার ফল ভোগ করবে।”

will be added

X\