Judges 17

1ইফ্রয়িমের পাহাড়ী এলাকায় মীখা নামে একজন লোক ছিল। 2সে তার মাকে বলল, “তোমার যে তেরো কেজি দু’শো গ্রাম রূপা চুরি হয়ে গিয়েছিল এবং যার জন্য তোমাকে আমি অভিশাপ দিতে শুনেছি তা আমার কাছে আছে, আমিই তা নিয়েছিলাম।” তখন তার মা বলল, “বাবা, সদাপ্রভু তোমাকে আশীর্বাদ করুন!” 3সেই তেরো কেজি দু’শো গ্রাম রূপা সে তার মাকে ফিরিয়ে দিল। তখন তার মা বলল, “এই রূপা আমি সদাপ্রভুর উদ্দেশে উৎসর্গ করছি যাতে আমার ছেলে তা দিয়ে খোদাই করে একটা প্রতিমা এবং ছাঁচে ঢেলে আর একটা প্রতিমা তৈরী করে। কাজেই আমি এই রূপা তোমাকেই ফিরিয়ে দেব।” 4মীখা সেই রূপা তার মায়ের হাতে ফিরিয়ে দিলে পর তার মা প্রায় আড়াই কেজি রূপা নিয়ে স্বর্ণকারকে দিল। সে তা দিয়ে একটা মূর্তি ও একটা প্রতিমা তৈরী করে দিল, আর সেগুলো মীখার বাড়ীতেই রাখা হল। 5মীখার একটা মন্দির ছিল। সে একটা এফোদ ও কতগুলো দেবমূর্তি তৈরী করে তার একজন ছেলেকে পুরোহিত-পদে বহাল করল। 6ইস্রায়েলীয়দের মধ্যে তখনও কোন রাজা ছিল না। যে যা ভাল মনে করত তা-ই করত। 7সেই সময় যিহূদা এলাকার বৈৎলেহমের একজন লেবীয় যুবক যিহূদা-গোষ্ঠীর লোকদের সংগে বাস করছিল। 8সে অন্য কোথাও থাকবার জায়গার খোঁজ করবার জন্য বৈৎলেহম ছেড়ে বের হল। যাত্রাপথে সে ইফ্রয়িমের পাহাড়ী এলাকায় মীখার বাড়ীতে গেল। 9মীখা তাকে জিজ্ঞাসা করল, “আপনি কোথা থেকে এসেছেন?” সে বলল, “আমি যিহূদা এলাকার বৈৎলেহমের একজন লেবীয়। আমি যেখানে থাকবার জায়গা পাব সেখানেই থাকব।” 10মীখা তাকে বলল, “আপনি তাহলে আমার সংগেই থাকুন এবং আমার পুরোহিত হয়ে পিতার মত হন। আমি আপনাকে বছরে একশো বিশ গ্রাম করে রূপা এবং খোরাক-পোশাক দেব।” এই কথা শুনে সেই লেবীয় ভিতরে গেল এবং তার সংগে থাকতে রাজী হল। মীখা সেই যুবকটিকে তার একজন ছেলের মতই দেখতে লাগল। 12মীখা সেই লেবীয়কে তার কাজে বহাল করলে পর সে তার পুরোহিত হয়ে তার বাড়ীতেই থাকল। 13মীখা বলল, “একজন লেবীয় যখন আমার পুরোহিত হয়েছে তখন আমি জানি যে, সদাপ্রভু আমার মংগল করবেন।”

will be added

X\