Joshua 24

1এর পর যিহোশূয় ইস্রায়েলীয়দের সমস্ত গোষ্ঠীকে শিখিমে এক জায়গায় জড়ো করলেন। তিনি ইস্রায়েলীয়দের বৃদ্ধ নেতাদের, কর্তাদের, বিচারকর্তাদের এবং কর্মচারীদের ডাকলেন। তাতে তাঁরা ঈশ্বরের সামনে উপস্থিত হলেন। 2যিহোশূয় সমস্ত লোকদের বললেন, “ইস্রায়েলীয়দের ঈশ্বর সদাপ্রভু বলেছেন, ‘অনেক কাল আগে তোমাদের পূর্বপুরুষেরা ইউফ্রেটিস নদীর ওপারে বাস করত এবং দেব-দেবতার পূজা করত। তাদের মধ্যে একজন ছিল অব্রাহাম ও নাহোরের বাবা তেরহ। 3কিন্তু আমি তোমাদের পূর্বপুরুষ অব্রাহামকে নদীর ওপার থেকে নিয়ে এসে কনান দেশের সব জায়গায় ঘুরালাম এবং তার বংশ অনেক বাড়িয়ে দিলাম। আমি তাকে ইস্‌হাককে দান করলাম, 4আর ইস্‌হাককে দান করলাম যাকোব আর এষৌকে। সেয়ীরের পাহাড়ী এলাকাটা আমি এষৌকে সম্পত্তি হিসাবে দিলাম, কিন্তু যাকোব ও তার ছেলেরা গেল মিসর দেশে। 5“ ‘তারপর আমি মোশি ও হারোণকে পাঠালাম। আমার কাজ দ্বারা আমি মিসরীয়দের আঘাত করলাম, আর তার পরে আমি তোমাদের বের করে আনলাম। 6তোমাদের পূর্বপুরুষেরা মিসর থেকে বের হয়ে সমুদ্রের কাছে আসল। এদিকে মিসরীয়েরা রথ ও ঘোড়সওয়ার নিয়ে লোহিত সাগর পর্যন্ত তাদের পিছনে পিছনে তাড়া করে আসল। 7কিন্তু ইস্রায়েলীয়েরা আমার কাছে কান্নাকাটি করলে পর আমি তাদের ও মিসরীয়দের মাঝখানে অন্ধকার করে দিলাম। আমি মিসরীয়দের উপর সাগরের জল ফিরিয়ে এনে তাদের তলিয়ে দিলাম। মিসরীয়দের অবস্থা আমি কি করেছিলাম তা তো তোমরা নিজেরাই দেখেছ। তারপর তোমরা অনেক দিন মরু-এলাকায় বাস করেছ। 8“ ‘এর পর আমি যর্দনের পূর্ব দিকের বাসিন্দা ইমোরীয়দের দেশে তোমাদের নিয়ে আসলাম। তারা তোমাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করল কিন্তু আমি তোমাদের হাতে তাদের তুলে দিলাম। তোমাদের সামনে থেকে আমি তাদের ধ্বংস করে ফেললাম আর তোমরা তাদের দেশ দখল করে নিলে। 9পরে সিপ্পোরের ছেলে মোয়াবের রাজা বালাক ইস্রায়েলীয়দের সংগে যুদ্ধ করবার জন্য প্রস্তুত হল এবং তোমাদের অভিশাপ দেবার জন্য বিয়োরের ছেলে বিলিয়মকে ডেকে আনল। 10কিন্তু বিলিয়মের কথায় কান দিতে আমি রাজী হই নি, তাই সে বারবারই তোমাদের আশীর্বাদ করেছিল। বালাকের হাত থেকে আমিই তোমাদের উদ্ধার করলাম। 11“ ‘তারপর তোমরা যর্দন পার হয়ে যিরীহোতে আসলে। যিরীহো শহরের লোকেরা এবং ইমোরীয়, পরিষীয়, কনানীয়, হিত্তীয়, গির্গাশীয়, হিব্বীয় ও যিবূষীয়েরা তোমাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করল, কিন্তু আমি তাদের সবাইকে তোমাদের হাতে তুলে দিলাম। 12আমি তোমাদের আগে আগে ভিমরুল পাঠিয়ে দিলাম; ভিমরুলগুলো তোমাদের সামনে থেকে সেই দু’জন ইমোরীয় রাজাকে তাড়িয়ে দিল। তোমরা যে তোমাদের তলোয়ার বা তীর-ধনুক দিয়ে এটা করেছ তা নয়। 13যে জমিতে তোমরা কোন পরিশ্রম কর নি এবং যে শহর ও গ্রাম তোমরা গড়ে তোল নি আমি সেগুলো তোমাদের দিলাম। তোমরা সেই সব শহর ও গ্রামে এখন বাস করছ; তা ছাড়া যে আংগুর ক্ষেত তোমরা কর নি আর যে জলপাই গাছ তোমরা লাগাও নি সেগুলোর ফলও তোমরা খাচ্ছ।’ ” 14তারপর যিহোশূয় বললেন, “এখন তোমরা খাঁটি অন্তরে বিশ্বস্তভাবে সদাপ্রভুকে ভক্তি কর এবং তাঁর সেবা কর। তোমাদের পূর্বপুরুষেরা ইউফ্রেটিস নদীর ওপারে ও মিসর দেশে যে সব দেব-দেবতার পূজা করতেন সেগুলো তোমরা দূর করে দিয়ে সদাপ্রভুর সেবা কর। 15কিন্তু সদাপ্রভুর সেবা করতে যদি তোমাদের পছন্দ না হয় তবে যার সেবা তোমরা করবে তা আজই ঠিক করে নাও। তোমাদের পূর্বপুরুষেরা ইউফ্রেটিস নদীর ওপারে থাকতে যে সব দেব-দেবতার পূজা করতেন তাদের সেবা করবে, না কি যাদের দেশে তোমরা বাস করছ সেই ইমোরীয়দের দেব-দেবতাদের সেবা করবে? তবে আমি ও আমার পরিবারের সবাই সদাপ্রভুর সেবা করব।” 16উত্তরে লোকেরা বলল, “সদাপ্রভুকে ত্যাগ করে দেব-দেবতার পূজা করা যেন আমাদের দ্বারা কখনও না হয়। 17আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু নিজেই আমাদের ও আমাদের পূর্বপুরুষদের মিসর দেশ থেকে, সেই দাসত্বের দেশ থেকে বের করে এনেছেন এবং আমাদের চোখের সামনেই সেই সব বড় বড় আশ্চর্য কাজ করেছেন। আমাদের সারা যাত্রা পথে এবং যে সব জাতির মধ্য দিয়ে আমরা এসেছি তাদের হাত থেকে তিনিই আমাদের বাঁচিয়ে রেখেছেন। 18এই দেশের বাসিন্দা ইমোরীয়দের এবং অন্যান্য সব জাতিদের সদাপ্রভুই আমাদের সামনে থেকে তাড়িয়ে দিয়েছেন। আমরাও সদাপ্রভুর সেবা করব, কারণ তিনিই আমাদের ঈশ্বর।” 19এই কথা শুনে যিহোশূয় লোকদের বললেন, “কিন্তু তোমরা তাঁর সেবা করতে পারবে না, কারণ তিনি পবিত্র ঈশ্বর, তাঁর পাওনা ভক্তি তিনি আর কাউকে পেতে দেবেন না। তোমাদের বিদ্রোহ ও তোমাদের পাপ তিনি ক্ষমা করবেন না। 20তোমরা যদি সদাপ্রভুকে ত্যাগ করে দেব-দেবতার সেবা কর তবে তিনি তোমাদের দিক থেকে ফিরবেন এবং যদিও তিনি আগে তোমাদের মংগল করেছেন কিন্তু তখন তোমাদের উপর অমংগল এনে তোমাদের শেষ করে দেবেন।” 21এতে লোকেরা যিহোশূয়কে বলল, “না, আমরা সদাপ্রভুরই সেবা করব।” 22তখন যিহোশূয় বললেন, “এই কথার দ্বারা তোমরা নিজেরাই নিজেদের সাক্ষী হয়ে রইলে যে, সদাপ্রভুকেই তোমরা সেবা করবার জন্য বেছে নিয়েছ।” উত্তরে তারা বলল, “হ্যাঁ, আমরা সাক্ষী রইলাম।” 23যিহোশূয় বললেন, “তাহলে তোমাদের মধ্যে যে সব দেব-দেবতা আছে তা এখনই তোমরা দূর করে দাও এবং ইস্রায়েলীয়দের ঈশ্বর সদাপ্রভুর উপরেই তোমাদের মন রাখ।” 24তখন সবাই যিহোশূয়কে বলল, “আমরা আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুরই সেবা করব এবং তাঁরই আদেশ পালন করব।” 25যিহোশূয় সেই দিন ইস্রায়েলীয়দের জন্য একটা ব্যবস্থা স্থির করলেন এবং শিখিমে আইন ও নিয়ম পালন করবার জন্য তাদের নির্দেশ দিলেন। 26সমস্ত কিছু তিনি ঈশ্বরের আইন-কানুনের একটা বইয়ে লিখে রাখলেন। তিনি একটা বড় পাথর নিয়ে সদাপ্রভুর পবিত্র জায়গার কাছে এলোন গাছের তলায় স্থাপন করলেন। 27পরে তিনি সমস্ত লোকদের বললেন, “এই পাথরটা আমাদের বিরুদ্ধে সাক্ষী হয়ে থাকবে। সদাপ্রভু আমাদের কাছে যে সব কথা বলেছেন তা এই পাথরটা শুনেছে। যদি তোমরা তোমাদের ঈশ্বরকে অস্বীকার কর তবে এটা তোমাদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেবে।” 28এর পর যিহোশূয় সবাইকে তাদের নিজের নিজের জায়গা-জমিতে পাঠিয়ে দিলেন। 29এই সব ঘটনার পর সদাপ্রভুর দাস নূনের ছেলে যিহোশূয় একশো দশ বছর বয়সে মারা গেলেন। 30লোকেরা গাশ পাহাড়ের উত্তরে তাঁর সম্পত্তির মধ্যে, অর্থাৎ ইফ্রয়িমের পাহাড়ী এলাকার তিম্নৎ-সেরহে তাঁকে কবর দিল। 31যিহোশূয়ের জীবনকালে এবং তাঁর পরে যে সব বৃদ্ধ নেতারা ইস্রায়েলীয়দের জন্য সদাপ্রভু যা কিছু করেছিলেন তা দেখেছিলেন তাঁদের জীবনকালে ইস্রায়েলীয়েরা সদাপ্রভুর সেবা করেছিল। 32যোষেফের হাড়গুলো, যা ইস্রায়েলীয়েরা মিসর দেশ থেকে নিয়ে এসেছিল, সেগুলো তারা শিখিমে কবর দিয়ে রেখেছিল। যাকোব এই জায়গাটা শিখিমের বাবা হমোরের ছেলেদের কাছ থেকে একশো কসীতা দিয়ে কিনে নিয়েছিলেন। এই জায়গাটা যোষেফের বংশধরদের সম্পত্তির মধ্যে পড়েছিল। 33পরে হারোণের ছেলে ইলিয়াসর মারা গেলে তাঁকে গিবিয়াতে কবর দেওয়া হল। ইফ্রয়িমের পাহাড়ী এলাকার এই জায়গাটা তাঁর ছেলে পীনহসকে দেওয়া হয়েছিল।

will be added

X\