Joshua 20

1এর পর সদাপ্রভু যিহোশূয়কে বললেন, 2“তুমি ইস্রায়েলীয়দের বল, ‘মোশির মধ্য দিয়ে আমি তোমাকে যে নির্দেশ দিয়েছি সেইমতই তারা যেন কতগুলো আশ্রয়-শহর ঠিক করে নেয়। 3যদি কেউ হঠাৎ করে কিম্বা খুন করবার ইচ্ছা মনে না রেখে কাউকে মেরে ফেলে তাহলে সে সেখানে পালিয়ে যেতে পারবে এবং রক্তের শোধ যার নেবার কথা তার হাত থেকে রক্ষা পাবে। 4এই সব আশ্রয়-শহরের কোন একটার কাছে পৌঁছে শহরের ফটকের কাছে দাঁড়িয়ে সেখানকার বৃদ্ধ নেতাদের কাছে সে নিজের সম্বন্ধে সব কথা খুলে বলবে। তারপর তারা তাকে তাদের শহরে ঢুকতে দেবে এবং তার থাকবার জন্য একটা জায়গা দেবে। 5রক্তের শোধ যার নেবার কথা সে যদি তার পিছনে তাড়া করে আসে তবে খুনের দায়ে পড়া লোকটিকে তারা তার হাতে ছেড়ে দেবে না, কারণ সেই লোককে মেরে ফেলবার পিছনে আগে থেকে তার মনে কোন ইচ্ছা বা হিংসা ছিল না। 6বিচার-সভায় যতদিন না তার বিচার হয় এবং সেই সময়কার মহাপুরোহিতের যতদিন না মৃত্যু হয় ততদিন পর্যন্ত তাকে সেই আশ্রয়-শহরে থাকতে হবে। এর পর যেখান থেকে সে পালিয়ে এসেছিল সেখানে তার নিজের বাড়ীতে ফিরে যেতে পারবে।’ ” 7সেইজন্য ইস্রায়েলীয়েরা আশ্রয়-শহর হিসাবে নপ্তালি-গোষ্ঠীর ভাগের পাহাড়ী এলাকার গালীলের কেদশ, ইফ্রয়িম-গোষ্ঠীর ভাগের পাহাড়ী এলাকার শিখিম এবং যিহূদা-গোষ্ঠীর ভাগের পাহাড়ী এলাকার কিরিয়ত-অর্ব, অর্থাৎ হিব্রোণ আলাদা করে রাখল। 8যিরীহোর উল্টাদিকে যর্দনের পূর্ব দিকে তারা রূবেণ-গোষ্ঠীর ভাগের সমভূমির মরু-এলাকার মধ্যে বেৎসর, গাদ-গোষ্ঠীর ভাগের গিলিয়দের রামোৎ এবং মনঃশি-গোষ্ঠীর ভাগের বাশনের গোলন আশ্রয়-শহর হিসাবে ঠিক করল। 9কোন ইস্রায়েলীয় কিম্বা তাদের মধ্যে বাস করা অন্য কোন জাতির লোক যদি কাউকে হঠাৎ মেরে ফেলে তবে সে এই সব ঠিককরা শহরগুলোর কোন একটাতে পালিয়ে যেতে পারবে। রক্তের শোধ যার নেবার কথা বিচার-সভায় খুনের দায়ে পড়া লোকটির বিচার না হওয়া পর্যন্ত সে তাকে মেরে ফেলতে পারবে না।


Copyright
Learn More

will be added

X\