Joshua 11

1হাৎসোরের রাজা যাবীন এই সব শুনে মাদোনের রাজা যোবব এবং শিম্রোণের ও অক্‌ষফের রাজাদের কাছে খবর পাঠালেন। 2এছাড়া তিনি উত্তর দিকের অন্যান্য যে সব রাজা ছিলেন তাঁদের কাছেও খবর পাঠালেন। সেই রাজ্যগুলো ছিল উঁচু পাহাড়ী এলাকায়, কিন্নেরতের দক্ষিণে অরাবা সমভূমিতে, নীচু পাহাড়ী এলাকায় এবং পশ্চিমে দোরের পাহাড়ী জায়গায়। 3তিনি পূর্ব ও পশ্চিম দিকের কনানীয়দের কাছে এবং পাহাড়ী এলাকার ইমোরীয়, হিত্তীয়, পরিষীয় ও যিবূষীয়দের কাছে আর হর্মোণ পাহাড়ের নীচে মিসপা এলাকার হিব্বীয়দের কাছেও খবর পাঠালেন। 4এই সব রাজারা তাঁদের সমস্ত সৈন্যদল নিয়ে বের হয়ে আসলেন। তাতে সাগরের কিনারার বালুকণার মত অনেক সৈন্যের একটা মস্ত বড় দল হল। তাঁদের সংগে ছিল অনেক ঘোড়া এবং রথ। 5এই সব রাজারা একটা নির্দিষ্ট জায়গায় একত্র হয়ে ইস্রায়েলীয়দের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবার জন্য মেরোম নামে এক ফোয়ারার কাছে ছাউনি ফেললেন। 6তখন সদাপ্রভু যিহোশূয়কে বললেন, “তুমি তাদের ভয় কোরো না, কারণ কালকে আমি এই সময়ের মধ্যে ইস্রায়েলীয়দের সামনে তাদের সবাইকে শেষ করে দেব। তুমি তাদের ঘোড়াগুলোর পায়ের শিরা কেটে দেবে এবং রথগুলো পুড়িয়ে ফেলবে।” 7তখন যিহোশূয় তাঁর সমস্ত সৈন্য নিয়ে মেরোম ফোয়ারার কাছে তাদের বিরুদ্ধে হঠাৎ উপস্থিত হয়ে তাদের উপর আক্রমণ চালালেন। 8সদাপ্রভু ইস্রায়েলীয়দের হাতে তাদের তুলে দিলেন। ইস্রায়েলীয়েরা তাদের মারতে মারতে মহাসীদোন, মিষ্রফোৎ-ময়িম এবং পূর্ব দিকে মিসপী উপত্যকা পর্যন্ত তাড়া করে নিয়ে গেল। শেষ পর্যন্ত আর কেউ বেঁচে রইল না। 9সদাপ্রভু যিহোশূয়কে যে নির্দেশ দিয়েছিলেন যিহোশূয় শত্রুদের প্রতি তা-ই করলেন। তিনি তাদের ঘোড়াগুলোর পায়ের শিরা কেটে দিলেন এবং রথগুলো পুড়িয়ে ফেললেন। 10তারপর যিহোশূয় ফিরে গিয়ে হাৎসোর অধিকার করে নিলেন এবং সেখানকার রাজাকে মেরে ফেললেন। হাৎসোর ছিল ঐ সব রাজ্যগুলোর মধ্যে প্রধান। 11ইস্রায়েলীয়েরা হাৎসোরের সবাইকে একেবারে ধ্বংস করে দিল, একটা জীবন্ত প্রাণীকেও বাঁচিয়ে রাখল না। এর পর যিহোশূয় শহরটা পুড়িয়ে ফেললেন। 12যিহোশূয় ঐ সব রাজাদের শহরগুলো দখল করে নিয়ে সেখানকার রাজাদের বন্দী করলেন। তিনি সেই রাজাদের ও সেখানকার লোকদের মেরে ফেললেন। সদাপ্রভুর দাস মোশির আদেশ অনুসারে তিনি তাদের একেবারে ধ্বংস করে দিলেন। 13কিন্তু টিলার উপর যে সব শহর ছিল সেগুলোর কোনটাই ইস্রায়েলীয়েরা পোড়ালো না, কেবল হাৎসোর যিহোশূয় পুড়িয়ে দিয়েছিলেন। 14এই শহরগুলো থেকে যে সব জিনিসপত্র ও পশুপাল লুট করা হয়েছিল সেগুলো ইস্রায়েলীয়েরা নিজেদের জন্য নিয়ে গেল; কিন্তু সমস্ত লোককে তারা একেবারে শেষ করে দিল, একটা জীবন্ত প্রাণীকেও তারা বাঁচিয়ে রাখল না। 15সদাপ্রভু তাঁর দাস মোশিকে যে সব আদেশ দিয়েছিলেন মোশি যিহোশূয়কে তা জানিয়েছিলেন, আর যিহোশূয় সেই সব আদেশ পালন করেছিলেন। সদাপ্রভু মোশিকে যে সব আদেশ দিয়েছিলেন যিহোশূয় তার একটাও অমান্য করেন নি। 16এইভাবে যিহোশূয় গোটা দেশটাই দখল করে নিলেন। তার মধ্যে ছিল উঁচু পাহাড়ী এলাকা, সমস্ত নেগেভ, সমস্ত গোশন এলাকা, নীচু পাহাড়ী জায়গাগুলো, অরাবা সমভূমি এবং ইস্রায়েলের উত্তর দিকের উঁচু পাহাড়ী এলাকা ও তার নীচের জায়গাগুলো। 17এক কথায় সেয়ীর পাহাড়শ্রেণীর দিকে উঠে যাওয়া হালক পাহাড় থেকে হর্মোণ পাহাড়ের নীচে লেবানন উপত্যকার বাল্‌গাদ পর্যন্ত সমস্ত জায়গাটাই যিহোশূয় অধিকার করে নিলেন। তিনি ঐ সব জায়গার রাজাদের ধরে মেরে ফেললেন। 18যিহোশূয় অনেক দিন ধরে এই সব রাজাদের সংগে যুদ্ধ করেছিলেন। 19একমাত্র গিবিয়োনের বাসিন্দা হিব্বীয়েরা ছাড়া আর কোন শহরের লোকেরা ইস্রায়েলীয়দের সংগে সন্ধি করে নি; ইস্রায়েলীয়েরা যুদ্ধ করে তাদের সবাইকে হারিয়ে দিয়েছিল। 20সদাপ্রভু ঐ সব লোকদের মন কঠিন করে দিয়েছিলেন যাতে তারা ইস্রায়েলীয়দের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আর তাতে তারা যেন ধ্বংসের অভিশাপের অধীন হয় এবং কোন রকম দয়া না পেয়ে মারা যায়। এই আদেশই সদাপ্রভু মোশিকে দিয়েছিলেন। 21এর পর যিহোশূয় গিয়ে পাহাড়ী এলাকার অনাকীয়দেরও মেরে ফেললেন। এই এলাকার মধ্যে ছিল হিব্রোণ, দবীর ও অনাব শহর এবং যিহূদা ও ইস্রায়েলের সমস্ত পাহাড়ী জায়গাগুলো। তিনি অনাকীয়দের এবং তাদের শহর ও গ্রামগুলো একেবারে ধ্বংস করে দিলেন। 22ইস্রায়েলীয়দের দেশের মধ্যে কোন অনাকীয় আর বেঁচে রইল না; কেবল গাজা, গাৎ ও অস্‌দোদে কিছু কিছু অনাকীয় বেঁচে রইল। 23সদাপ্রভু মোশিকে যে নির্দেশ দিয়েছিলেন সেই অনুসারে যিহোশূয় গোটা দেশটা দখল করে নিলেন এবং গোষ্ঠী অনুসারে সম্পত্তি হিসাবে তা ইস্রায়েলীয়দের মধ্যে ভাগ করে দিলেন। দেশে তখনকার মত যুদ্ধ থেমে গিয়েছিল।

will be added

X\