Jeremiah 34

1বাবিলের রাজা নবূখদ্‌নিৎসর, তাঁর সব সৈন্যদল এবং তাঁর অধীন সমস্ত রাজ্য ও জাতির লোকেরা যখন যিরূশালেম ও তার আশেপাশের শহরগুলোর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছিল তখন ইস্রায়েলের ঈশ্বর সদাপ্রভু যিরমিয়কে বললেন যেন তিনি যিহূদার রাজা সিদিকিয়ের কাছে গিয়ে বলেন, “আমি সদাপ্রভু এই কথা বলছি যে, আমি এই শহর বাবিলের রাজার হাতে তুলে দিতে যাচ্ছি আর সে এটা পুড়িয়ে দেবে। 3তুমি তার হাত থেকে রেহাই পাবে না; তোমাকে নিশ্চয়ই ধরে তার হাতে দেওয়া হবে। তুমি নিজের চোখে বাবিলের রাজাকে দেখতে পাবে; সে তোমার মুখোমুখি হয়ে তোমার সংগে কথা বলবে, আর তুমি বাবিলে যাবে। 4“হে যিহূদার রাজা সিদিকিয়, তবুও তুমি আমার কথা শোন। তোমার সম্বন্ধে আমি বলছি, তুমি তলোয়ারের আঘাতে মারা পড়বে না; 5তুমি শান্তিতে মারা যাবে। তোমার পূর্বপুরুষ, অর্থাৎ তোমার আগে যে সব রাজারা ছিল তাদের সম্মান দেখাবার জন্য যেমন আগুন জ্বালানো হয়েছিল লোকে তোমার সম্মানের জন্যও তেমনি আগুন জ্বালাবে এবং ‘হায় মনিব! ’ বলে দুঃখ প্রকাশ করবে। আমি সদাপ্রভু নিজেই এই কথা বলছি।” 6তখন নবী যিরমিয় যিরূশালেমে যিহূদার রাজা সিদিকিয়কে সেই সব কথা বললেন। 7সেই সময় বাবিলের রাজার সৈন্যেরা যিরূশালেম, লাখীশ ও অসেকার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছিল, কারণ যিহূদা দেশের মধ্যে কেবল এই দেয়াল-ঘেরা শহরগুলোই অধিকার করে নিতে তাদের বাকী ছিল। 8পরে সদাপ্রভু আবার যিরমিয়ের সংগে কথা বললেন। এর আগে রাজা সিদিকিয় যিরূশালেমের সমস্ত লোকদের সংগে দাসদের মুক্তি ঘোষণার বিষয় নিয়ে নিয়ম স্থির করেছিলেন। 9সেই নিয়ম হল, প্রত্যেকে তার ইব্রীয় দাস ও দাসীকে মুক্ত করে দেবে; কোন যিহূদী ভাইকে কেউ দাস করে রাখতে পারবে না। 10কাজেই সব রাজকর্মচারী ও লোকেরা এই নিয়ম মেনে তাদের দাস ও দাসীদের মুক্ত করে দিতে রাজী হল এবং তাদের আর দাস করে রাখবে না বলে ঠিক করল। তখন তারা তাদের দাসদের মুক্ত করে দিল। 11কিন্তু পরে তারা মন বদলে ফেলল এবং যে সব দাস ও দাসীদের তারা মুক্ত করেছিল তাদের ফিরিয়ে এনে আবার দাস বানাল। 12এইজন্য সদাপ্রভু যিরমিয়কে বলেছিলেন, 13“আমি ইস্রায়েলের ঈশ্বর সদাপ্রভু বলছি যে, আমি যখন তোমাদের পূর্বপুরুষদের মিসর থেকে, দাসত্বের দেশ থেকে বের করে এনেছিলাম তখন তাদের জন্য এই নিয়ম স্থির করে বলেছিলাম, 14‘যদি কোন ইব্রীয় ভাই নিজেকে তোমাদের কাছে বিক্রি করে থাকে তবে সপ্তম বছরে তোমরা তাকে মুক্ত করে দেবে। ছয় বছর সে তোমাদের দাসত্ব করলে পর তোমাদের তাকে ছেড়ে দিতে হবে।’ কিন্তু তোমাদের পূর্বপুরুষেরা আমার কথা শোনে নি, আমার কথায় মনোযোগও দেয় নি। 15অল্প কিছুদিন হল তোমরা মন ফিরিয়ে আমার চোখে যা ঠিক তা-ই করেছিলে, অর্থাৎ তোমরা প্রত্যেকে তোমাদের ইব্রীয় ভাইদের মুক্তি ঘোষণা করেছিলে। এমন কি, আমার ঘরে আমার সামনে তোমরা আমার নিয়ম মানবে বলে রাজী হয়েছিলে। 16কিন্তু এখন তোমরা ঘুরে গেছ এবং আমাকে অসম্মানিত করেছ; তোমরা যে সব দাস ও দাসীদের তাদের ইচ্ছামত চলে যাবার জন্য মুক্ত করে দিয়েছিলে তোমরা প্রত্যেকে তাদের আবার ফিরিয়ে এনে দাস-দাসী বানিয়েছ। 17“কাজেই আমি বলছি, তোমরা আমার বাধ্য হও নি, কারণ তোমাদের জাতি ভাইদের জন্য তোমরা মুক্তি ঘোষণা কর নি। সেইজন্য আমি এখন তোমাদের জন্য মুক্তি ঘোষণা করছি; সেই মুক্তি হল যুদ্ধ, মড়ক ও দুর্ভিক্ষের হাতে পড়বার মুক্তি। আমি তোমাদের অবস্থা এমন করব যা দেখে পৃথিবীর সমস্ত রাজ্যের লোকেরা ভয়ে আঁত্‌কে উঠবে। 18যিহূদা ও যিরূশালেমের নেতারা, রাজকর্মচারীরা, পুরোহিতেরা ও দেশের সব লোকেরা দুই টুকরা করা বাছুরের মাঝখান দিয়ে হেঁটে আমার নিয়ম পালন করবে বলে প্রতিজ্ঞা করেছিল, কিন্তু তারা আমার নিয়ম ভেংগেছে এবং সেই প্রতিজ্ঞা পুরণ করে নি। 20সেইজন্য যারা তাদের মেরে ফেলতে চায় সেই শত্রুদের হাতে আমি তাদের তুলে দেব। তাদের মৃতদেহ হবে আকাশের পাখী ও বনের পশুদের খাবার। 21“যে শত্রুরা যিহূদার রাজা সিদিকিয় ও তার কর্মচারীদের মেরে ফেলতে চায় আমি সেই শত্রুদের হাতেই তাদের তুলে দেব। বাবিলের রাজার যে সৈন্যদল তোমাদের কাছ থেকে চলে গিয়েছিল আমি তাদেরই হাতে তোমাদের তুলে দেব। 22আমি তাদের আদেশ দিয়ে এই শহরে ফিরিয়ে আনব। তারা এই শহরের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে এবং তা দখল করে পুড়িয়ে দেবে। আমি যিহূদার শহরগুলোকে ধ্বংস করে জনশূন্য করব।”

will be added

X\