Jeremiah 25

1যোশিয়ের ছেলে যিহূদার রাজা যিহোয়াকীমের রাজত্বের চতুর্থ বছরে, অর্থাৎ বাবিলের রাজা নবূখদ্‌নিৎসরের রাজত্বের প্রথম বছরে যিহূদার সমস্ত লোকদের সম্বন্ধে ঈশ্বরের বাক্য যিরমিয়ের কাছে প্রকাশিত হল। 2সেইজন্য নবী যিরমিয় সমস্ত যিহূদার লোক ও যিরূশালেমের সমস্ত বাসিন্দাদের বললেন, 3“যোশিয়ের ছেলে যিহূদার রাজা আমোনের রাজত্বের তেরো বছর থেকে এই পর্যন্ত, অর্থাৎ এই তেইশ বছর ধরে সদাপ্রভুর বাক্য আমার কাছে প্রকাশিত হয়েছে আর আমি বার বার তোমাদের তা বলেছি, কিন্তু তোমরা তাতে কান দাও নি। 4“সদাপ্রভু যদিও তাঁর সব দাসদের, অর্থাৎ নবীদের বার বার তোমাদের কাছে পাঠিয়েছিলেন তবুও তোমরা শোন নি কিম্বা মনোযোগও দাও নি। 5তাঁরা সদাপ্রভুর এই কথা বলেছিলেন, ‘তোমরা প্রত্যেকে এখন তোমাদের মন্দ পথ ও মন্দ কাজ থেকে ফেরো, তাহলে যে দেশ আমি তোমাদের ও তোমাদের পূর্বপুরুষদের দিয়েছিলাম সেই দেশে তোমরা চিরকাল থাকতে পারবে। 6দেব-দেবতাদের সেবা ও পূজা করবার জন্য তাদের পিছনে যেয়ো না; তোমাদের হাতের তৈরী জিনিস দিয়ে আমাকে অসন্তুষ্ট করে তুলো না। তাহলে আমি তোমাদের অমংগল করব না।’ 7“এখন সদাপ্রভু বলছেন, ‘কিন্তু তোমরা আমার কথা শোন নি। তার বদলে তোমাদের হাতের তৈরী জিনিস দিয়ে আমাকে অসন্তুষ্ট করে নিজেদের উপর অমংগল ডেকে এনেছ।’ 8“সেইজন্য সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু বলছেন, ‘তোমরা আমার কথা শোন নি। 9কাজেই আমি উত্তরের সব জাতিগুলোকে ও আমার দাস বাবিলের রাজা নবূখদ্‌নিৎসরকে ডেকে আনব। এই দেশ ও তার বাসিন্দাদের বিরুদ্ধে এবং চারপাশের সব জাতিদের বিরুদ্ধে আমি তাদের আনব। আমি সেই লোকদের সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দেব এবং ভীষণ ভয়ের ও ঠাট্টার পাত্র করব; তাদের দেশ আমি চিরস্থায়ী ধ্বংসের স্থান করব। 10আমি তাদের মধ্য থেকে আমোদ ও আনন্দের শব্দ, বর ও কনের গলার স্বর, জাঁতার শব্দ ও বাতির আলো দূর করে দেব। 11এই দেশটা ধ্বংসস্থান ও পতিত জমি হয়ে যাবে আর এই সব জাতিরা সত্তর বছর ধরে বাবিলের রাজার দাস হয়ে থাকবে। 12কিন্তু সত্তর বছর পূর্ণ হলে পর আমি বাবিলের রাজা ও তার জাতিকে তাদের অন্যায়ের জন্য শাস্তি দেব এবং বাবিলীয়দের দেশকে চিরদিনের জন্য ধ্বংসস্থান করব। 13আমি সেই সব দেশের বিরুদ্ধে যে সব কথা বলেছি যা এই বইয়ে লেখা আছে, অর্থাৎ সমস্ত জাতির বিরুদ্ধে যিরমিয় নবী হিসাবে যে কথা বলেছে তা আমি ঐ দেশের উপরে আনব। 14বাবিলীয়েরা অনেক জাতি ও বড় বড় রাজাদের দাস হবে; তাদের সমস্ত কাজ অনুসারেই আমি তাদের ফল দেব।’ ” 15ইস্রায়েলের ঈশ্বর সদাপ্রভু আমাকে বললেন, “তুমি আমার হাত থেকে আংগুর রসে, অর্থাৎ আমার ক্রোধে পূর্ণ এই পেয়ালাটা নাও এবং যে সব জাতির কাছে আমি তোমাকে পাঠাব তাদের তা খেতে দাও। 16তারা তা খেয়ে টলতে থাকবে এবং আমি যে যুদ্ধ তাদের মধ্যে পাঠিয়ে দেব তার দরুন পাগল হয়ে যাবে।” 17তখন আমি সদাপ্রভুর হাত থেকে পেয়ালাটা নিলাম এবং তিনি যে সব জাতির কাছে আমাকে পাঠালেন তাদের খাওয়ালাম। 18আমি যিরূশালেম ও যিহূদার শহরগুলোকে এবং তার রাজাদের ও রাজকর্মচারীদের খাওয়ালাম, যেন তারা আজ যেমন আছে সেই রকম ধ্বংসের, ভীষণ ভয়ের, ঠাট্টার ও অভিশাপের পাত্র থাকে। 19এছাড়া আমি তা খাওয়ালাম মিসরের রাজা ফরৌণ ও তার রাজকর্মচারীদের, তার দেশের নেতাদের ও তার সব লোকদের; 20সেখানকার সব বিদেশীদের; ঊষ দেশের সব রাজাদের; পলেষ্টীয়দের সব রাজাদের, অর্থাৎ অস্কিলোন, গাজা, ইক্রোণ ও অস্‌দোদের বাকী অংশের রাজাদের; 21ইদোম, মোয়াব ও অম্মোনের লোকদের; 22সোর ও সীদোনের সব রাজাদের; সমুদ্রের ওপারের দেশের রাজাদের; 23দদান, টেমা, বূষ দেশের লোকদের; মাথার দু’পাশের চুল কাটা লোকদের; 24আরবের সব রাজাদের; মরু-এলাকায় বাসকারী বিদেশী সব রাজাদের; 25সিম্রী, এলম ও মাদীয়দের সব রাজাদের; 26কাছের ও দূরের একের পর এক উত্তরের সব রাজাদের। মোট কথা, আমি পৃথিবীর সমস্ত জাতিদের তা খাওয়ালাম। এদের সকলের পরে শেশকের, অর্থাৎ বাবিলের রাজাও তা খাবে। 27তারপর সদাপ্রভু আমাকে বললেন, “তাদের বল যে, ইস্রায়েলের ঈশ্বর সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু বলছেন, ‘আমি তোমাদের মধ্যে যুদ্ধ পাঠাচ্ছি; তোমরা আমার ক্রোধের পেয়ালা থেকে খাও, মাতাল হও, বমি কর, পড়ে যাও এবং আর উঠো না।’ 28কিন্তু তারা যদি তোমার হাত থেকে পেয়ালা নিয়ে খেতে অস্বীকার করে তবে তাদের বলবে যে, সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু বলছেন, ‘তোমাদের খেতেই হবে। 29দেখ, আমার নিজের শহরকেই আমি প্রথমে ধ্বংস করতে যাচ্ছি, তাহলে তোমরা কি শাস্তি না পেয়েই থাকবে? তোমরা শাস্তি পাবেই পাবে, কারণ পৃথিবীর সব লোকদের বিরুদ্ধে আমি যুদ্ধ ডেকে আনছি। আমি সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু এই কথা বলছি।’ 30“এখন তুমি তাদের বিরুদ্ধে নবী হিসাবে এই সব কথা বল, ‘সদাপ্রভু উপর থেকে গর্জন করবেন; তাঁর পবিত্র বাসস্থান থেকে তিনি তাঁর গলার স্বর শোনাবেন এবং তাঁর দেশের বিরুদ্ধে খুব জোরে গর্জন করবেন। যারা আংগুর মাড়াই করে তাদের মতই তিনি পৃৃথিবীতে বাসকারী সকলের বিরুদ্ধে চিৎকার করবেন। 31পৃথিবীর শেষ সীমা পর্যন্ত সেই শব্দ শোনা যাবে, কারণ সদাপ্রভু জাতিদের বিরুদ্ধে নালিশ আনবেন। তিনি সমস্ত মানুষের বিচার করবেন এবং তলোয়ারের হাতে দুষ্টদের তুলে দেবেন।’ ” 32সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু বলছেন, “দেখ, এক জাতি থেকে আর এক জাতিতে বিপদ ছড়িয়ে পড়ছে; পৃথিবীর শেষ সীমা থেকে একটা ভীষণ ঝড় উঠছে।” 33তখন সদাপ্রভু যাদের মেরে ফেলবেন তারা পৃথিবীর এক সীমা থেকে অন্য সীমা পর্যন্ত সব জায়গায় পড়ে থাকবে। তাদের জন্য কেউ শোক করবে না কিম্বা তাদের কেউ জড়োও করবে না বা কবরও দেবে না, কিন্তু তারা হবে মাটিতে পড়ে থাকা গোবরের মত। 34হে পালকেরা, তোমরা কাঁদ, বিলাপ কর; হে পালের নেতারা, তোমরা ধুলায় গড়াগড়ি দাও, কারণ তোমাদের জবাই করে ফেলবার সময় এসেছে; তোমরা সুন্দর একটা মাটির পাত্রের মত চুরমার হয়ে যাবে। 35পালকদের পালাবার উপায় থাকবে না; পালের নেতারা কোথাও চলে যেতে পারবে না। 36পালকদের কান্না আর পালের নেতাদের বিলাপ শোন, কারণ সদাপ্রভু তাদের চারণ ভূমি নষ্ট করে ফেলছেন। 37সদাপ্রভুর জ্বলন্ত ক্রোধের দরুন শান্তিপূর্ণ মাঠগুলো পতিত জমি হয়ে থাকবে। 38তিনি সিংহের মত করেই তাঁর জায়গা ছেড়ে আসবেন; তাতে অত্যাচারীদের রাগের জন্য ও সদাপ্রভুর জ্বলন্ত ক্রোধের জন্য তাদের দেশ ধ্বংসস্থান হয়ে যাবে।

will be added

X\