Jeremiah 10

1হে ইস্রায়েল জাতি, সদাপ্রভু তোমাদের যে কথা বলছেন তা শোন। 2সদাপ্রভু বলছেন, “তোমরা ভিন্ন জাতিদের আচার-ব্যবহার শিখো না, কিম্বা আকাশের নানা চিহ্ন দেখে ভেংগে পোড়ো না, যদিও ভিন্ন জাতিরাই সেগুলো দেখে ভেংগে পড়ে। 3এর কারণ সেই লোকদের ধর্মীয় আচার-ব্যবহার অসার। তারা বন থেকে একটা গাছ কাটে এবং কারিগর বাটালি দিয়ে তার আকার দেয়। 4তারা সোনা ও রূপা দিয়ে সেটা সাজায় এবং যাতে সেটা পড়ে না যায় সেইজন্য সেটাকে হাতুড়ি ও পেরেক দিয়ে শক্ত করে। 5শসার ক্ষেতের কাকতাড়ুয়ার মত তাদের প্রতিমাগুলো কথা বলতে পারে না; তাদের বহন করে নিয়ে যেতে হয়, কারণ তারা হাঁটতে পারে না। তোমরা তাদের ভয় কোরো না; তারা ক্ষতিও করতে পারে না, মংগলও করতে পারে না।” 6হে সদাপ্রভু, তোমার মত আর কেউ নেই; তুমি মহান, তুমি ক্ষমতায় শক্তিশালী। 7হে জাতিদের রাজা, তোমাকে কে না ভক্তিপূর্ণ ভয় করবে? এ তো তোমার পাওনা। জাতিদের সব জ্ঞানী লোকদের মধ্যে এবং তাদের সব রাজ্যের মধ্যে কেউ তোমার মত নয়। 8তারা সবাই জ্ঞানহীন ও বোকা। তাদের প্রতিমাগুলো তো কাঠের তৈরী, সেগুলো কি করে শিক্ষা দেবে? 9তর্শীশ থেকে পিটানো রূপা ও ঊফস থেকে সোনা আনা হয়। কারিগর ও স্বর্ণকার তা দিয়ে প্রতিমা মোড়ায়। সেগুলোকে নীল ও বেগুনে কাপড় পরানো হয়; তা পাকা কারিগরের হাতে তৈরী। 10কিন্তু সদাপ্রভুই সত্যিকারের ঈশ্বর; তিনি জীবন্ত ঈশ্বর ও চিরস্থায়ী রাজা। তাঁর ক্রোধে পৃথিবী কাঁপে; জাতিরা তাঁর ক্রোধ সহ্য করতে পারে না। 11তোমরা লোকদের বল যে, এই দেব-দেবতারা মহাকাশ ও পৃথিবী তৈরী করে নি; তারা মহাকাশ ও পৃথিবীর সব জায়গা থেকে ধ্বংস হয়ে যাবে। 12সদাপ্রভু নিজের শক্তিতে পৃথিবী তৈরী করেছেন, তাঁর জ্ঞান দ্বারা জগৎ স্থাপন করেছেন ও বুদ্ধি দ্বারা আকাশ বিছিয়ে দিয়েছেন। 13তাঁর আদেশে আকাশের জল গর্জন করে; তিনি পৃথিবীর শেষ সীমা থেকে মেঘ উঠিয়ে আনেন। তিনি বৃষ্টির জন্য বিদ্যুৎ তৈরী করেন এবং তাঁর ভাণ্ডার থেকে বাতাস বের করে আনেন। 14সব মানুষই জ্ঞানহীন ও বোকা; প্রত্যেক স্বর্ণকার তার প্রতিমাগুলোর জন্য লজ্জা পায়। তার ছাঁচে ঢালা মূর্তিগুলো মিথ্যা, সেগুলোর মধ্যে নিঃশ্বাস নেই। 15সেগুলো অপদার্থ, ঠাট্টা-বিদ্রূপের জিনিস; বিচারের সময় আসলে সেগুলো ধ্বংস হয়ে যাবে। 16যিনি যাকোবের পাওনা অংশ তিনি এগুলোর মত নন, কারণ তিনিই সমস্ত জিনিসের সৃষ্টিকর্তা আর ইস্রায়েল তাঁর বিশেষ সম্পত্তি। তাঁর নাম সর্বক্ষমতার অধিকারী সদাপ্রভু। 17তোমরা যারা ঘেরাও হয়ে আছ, তোমরা দেশ ছেড়ে যাবার জন্য নিজের নিজের জিনিসপত্র গুছিয়ে নাও, 18কারণ সদাপ্রভু বলছেন, “এই সময় যারা দেশে থাকবে আমি তাদের ছুঁড়ে ফেলে দেব; আমি তাদের উপর এমন কষ্ট আনব যাতে তারা ধরা পড়ে।” 19হায়, আমার আঘাত! আমার ঘা ভাল হবার নয়! তবু আমি নিজেকে বলেছি, “এটা আমার রোগ, আমাকে তা সহ্য করতেই হবে।” 20আমার তাম্বু ধ্বংস হয়েছে; তার সমস্ত দড়াদড়ি ছিঁড়ে গেছে। আমার ছেলেরা আমার কাছ থেকে চলে গেছে, তারা আর নেই; আমার তাম্বু আবার খাটাবার কিম্বা তার পর্দা টাংগাবার জন্য এখন আর কেউ নেই। 21রাখালেরা জ্ঞানহীন, তারা সদাপ্রভুর ইচ্ছা জানতে চায় না; তাই তারা সফল হয় নি এবং তাদের সমস্ত পশুপাল ছড়িয়ে এদিক-সেদিক চলে গেছে। 22শোন, খবর আসছে! যিহূদার শহরগুলো জনশূন্য ও শিয়ালদের বাসস্থান করবার জন্য উত্তরের দেশ থেকে ভীষণ গোলমালের আওয়াজ আসছে। 23হে সদাপ্রভু, আমি জানি মানুষের জীবন-পথ তার নিজের নয়; তার পায়ের ধাপ নির্দেশ করাও তার কাজ নয়। 24হে সদাপ্রভু, কেবল ন্যায়বিচার দিয়ে তুমি আমাকে সংশোধন কর, কিন্তু তোমার ক্রোধে তা কোরো না, করলে তুমি আমাকে একেবারে শূন্য করে দেবে। 25যে সব জাতি তোমাকে স্বীকার করে না, যারা তোমাকে ডাকে না, তাদের উপর তোমার ক্রোধ ঢেলে দাও। তারা যাকোবকে সম্পূর্ণভাবে গ্রাস করেছে, তার দেশকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

will be added

X\