Isaiah 33

1হে ধ্বংসকারী, ধিক্‌ তোমাকে! তুমি ধ্বংস না হয়েও ধ্বংস করছ; তোমার প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করা হয় নি তবুও তুমি বিশ্বাসঘাতকতা করছ। ধ্বংসের কাজ শেষ করলেই তোমাকে ধ্বংস করা হবে; বিশ্বাসঘাতকতা করা শেষ করলেই তোমার প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করা হবে। 2হে সদাপ্রভু, আমাদের প্রতি দয়া কর; আমরা তোমার জন্য অপেক্ষা করছি। প্রতিদিন সকাল বেলায় তুমি আমার লোকদের শক্তি হও, আর কষ্টের সময় আমাদের উদ্ধারকারী হও। 3তোমার গলার স্বরে লোকেরা পালায়; তুমি উঠলে জাতিরা ছড়িয়ে পড়ে। 4পংগপাল যেমন করে শস্য নষ্ট করে, তেমনি করে হে ধ্বংসকারী, তোমাদের জিনিসও লুট করা হবে। লোকেরা এক ঝাঁক পংগপালের মত সেগুলোর উপর এসে পড়বে। 5সদাপ্রভু কত মহান! তিনি স্বর্গে বাস করেন; তিনি সিয়োনকে ন্যায়বিচার ও সততায় পূর্ণ করেছেন। 6যুগের পর যুগ ধরে তিনিই তাদের নিরাপত্তা, উদ্ধার, জ্ঞান ও বুঝবার শক্তির ভাণ্ডার হয়ে আসছেন। সদাপ্রভুর প্রতি ভক্তিপূর্ণ ভয় হল তাদের ধন। 7দেখ, তাদের সাহসী লোকেরা রাস্তায় রাস্তায় কাঁদছে; শান্তির জন্য পাঠানো দূতেরা খুব বেশী কান্নাকাটি করছে। 8রাজপথগুলো খালি, কোন লোক রাস্তা দিয়ে যাচ্ছে না। চুক্তি ভেংগে গেছে; শহরগুলোকে কোন দাম দেওয়া হচ্ছে না এবং কাউকেই সম্মান করা হচ্ছে না। 9দেশ শোক করছে আর ্নান হয়ে যাচ্ছে, লেবানন লজ্জা পেয়েছে ও শুকিয়ে যাচ্ছে, শারোণ মরু-এলাকার মত হয়েছে আর বাশন ও কর্মিলের সব গাছের পাতা ঝরে পড়েছে। 10সদাপ্রভু বলছেন, “এবার আমি উঠব, এবার আমি সম্মানিত হব, এবার আমার গৌরব প্রকাশিত হবে। 11তোমরা গর্ভে ধরবে তুষ আর জন্ম দেবে খড়ের। তোমাদের নিঃশ্বাস আগুনের মত করে তোমাদের পুড়িয়ে ফেলবে। 12লোকেরা হবে পুড়িয়ে ফেলা চুনা পাথরের মত এবং কেটে ফেলে আগুনে দেওয়া কাঁটাঝোপের মত।” 13তোমরা যারা দূরে আছ, আমি যা করেছি তা শোন; তোমরা যারা কাছে আছ আমার শক্তিকে স্বীকার করে নাও। 14সিয়োনের পাপীরা ভীষণ ভয় পেয়েছে; ঈশ্বরের প্রতি ভক্তিহীন লোকদের কাঁপুনি ধরেছে। তারা বলছে, “আমাদের মধ্যে কে পুড়িয়ে ফেলা আগুনের সংগে থাকতে পারে? কে চিরকাল জ্বলতে থাকা আগুনের সংগে বাস করতে পারে?” 15সে-ই বাস করতে পারে, যে লোক সৎভাবে চলাফেরা করে ও যা ঠিক তা বলে, যে লোক জুলুম করে লাভ করা ঘৃণা করে ও ঘুষ নেওয়া থেকে হাত সরিয়ে রাখে, যে লোক খুনের ষড়যন্ত্রের কথা শোনা থেকে কান বন্ধ করে রাখে আর মন্দ কাজ করতে দেখা থেকে চোখ বন্ধ করে রাখে। 16সেই লোক নিরাপদে বাস করবে এবং তার আশ্রয় হবে পাহাড়ী দুর্গ। তাকে খাবারের যোগান দেওয়া হবে আর সে নিশ্চয়ই জল পাবে। 17তোমার চোখ রাজাকে তাঁর জাঁকজমকের মধ্যে দেখতে পাবে, আর দেখতে পাবে এমন একটা দেশ যার সীমানা অনেক বড়। 18তোমার চিন্তার মধ্যে থাকবে আগের সেই ভীষণ ভয়ের কথা। তুমি ভাববে, “কোথায় সেই হিসাব-রক্ষক? কোথায় সেই লোক, যে কর্‌ আদায় করত? কোথায় দুর্গের ভার-পাওয়া সেই কর্মচারী?” 19সেই দেমাক-ভরা লোকদের তুমি আর দেখবে না; দেখবে না সেই অজানা ভাষা বলা লোকদের, যাদের কথা অদ্ভুত আর বুঝা যায় না। 20আমাদের সব পর্ব পালনের শহর সিয়োনের দিকে চেয়ে দেখ। তোমার চোখ দেখবে যিরূশালেমকে, একটা শান্তিপূর্ণ বাসস্থানকে, একটা তাম্বুকে যা সরানো হবে না। তার গোঁজগুলো কখনও তোলা হবে না আর তার কোন দড়িও ছিঁড়বে না। 21সেখানে শক্তিশালী সদাপ্রভু আমাদের মংগলের জন্য থাকবেন। সেখানে বড় বড় নদী ও খাল থাকবে। কোন দাঁড়ের নৌকা সেখানে চলবে না; কোন শক্তিশালী জাহাজও তার উপর দিয়ে যাবে না। 22সদাপ্রভুই আমাদের ন্যায়বিচারক ও আমাদের আইনদাতা; সদাপ্রভুই আমাদের রাজা, তিনিই আমাদের রক্ষা করবেন। 23এখন তোমার পালের দড়াদড়ি ঢিলে হয়ে গেছে; তাতে মাস্তুলটা শক্ত করে আট্‌কানো নেই, পালও খাটানো যায় নি। পরে লুটের প্রচুর জিনিস ভাগ করা হবে; এমন কি, খোঁড়ারাও লুটের মাল নিয়ে যাবে। 24সিয়োনে বাসকারী কেউ বলবে না, “আমি অসুস্থ।” যারা সেখানে বাস করে তাদের পাপ ক্ষমা করা হবে।

will be added

X\