ইবরানী 4

1ঈশ্বরের দেওয়া বিশ্রামের জায়গায় যাবার যে প্রতিজ্ঞা ছিল সেই প্রতিজ্ঞা আমাদের জন্যও খাটে। সেইজন্য আমাদের সাবধান হতে হবে, যেন কাউকে সেই প্রতিজ্ঞা করা আশীর্বাদের অযোগ্য বলে দেখা না যায়। 2ইস্রায়েলীয়দের কাছে যেমন সুখবর প্রচার করা হয়েছিল তেমনি আমাদের কাছেও করা হয়েছে। কিন্তু সেই সুখবরে ইস্রায়েলীয়দের কোনই লাভ হয় নি, কারণ তারা তা শুনে বিশ্বাস করে নি। 3কিন্তু আমরা বিশ্বাস করেছি এবং তাঁর সেই প্রতিজ্ঞা করা বিশ্রামের জায়গায় এসেছি। এই বিশ্রাম সম্বন্ধে ঈশ্বর বলেছিলেন, “সেইজন্য আমি ক্রোধে শপথ করে বলেছিলাম, ‘আমার দেওয়া বিশ্রামের জায়গায় তারা যেতে পারবে না।’ ” কিন্তু এতে কোন ভুল নেই যে, জগৎ সৃষ্টির পরে ঈশ্বরের কাজ শেষ হয়ে বিশ্রাম শুরু হয়েছিল। 4পবিত্র শাস্ত্রের এক জায়গায় সপ্তম দিন সম্বন্ধে বলা হয়েছে, “ঈশ্বর সপ্তম দিনে কোন সৃষ্টির কাজ করেন নি।” 5তিনি আবার বলেছেন, “আমার দেওয়া বিশ্রামের জায়গায় তারা যেতে পারবে না।” 6এখন এই কথা ঠিক যে, কিছু লোক তাঁর দেওয়া বিশ্রামের জায়গায় যেতে পারবে; কিন্তু যে ইস্রায়েলীয়দের কাছে আগে সুখবর প্রচার করা হয়েছিল তাদের অবাধ্যতার জন্যই তারা ঈশ্বরের দেওয়া বিশ্রামের জায়গায় যেতে পারে নি। 7এইজন্য ঈশ্বর যেমন আগে ইস্রায়েলীয়দের কাছে বলেছিলেন ঠিক তেমনি অনেক দিন পরে রাজা দায়ূদের মধ্য দিয়ে আবার বলেছেন, আহা, আজ যদি তোমরা তাঁর কথায় কান দাও! তিনি বলেছেন, “তোমাদের অন্তর তোমরা কঠিন কোরো না।” এই কথা বলে তাঁর দেওয়া বিশ্রামের জায়গায় যাবার জন্য ঈশ্বর আর একটা সময় ঠিক করেছিলেন এবং তিনি তাঁর নাম দিয়েছিলেন আজ। 8যদি যিহোশূয় ইস্রায়েলীয়দের সেই বিশ্রামের জায়গায় নিয়ে যেতেন তবে ঈশ্বর পরে আর একটা সময়ের কথা বলতেন না। 9তাহলে দেখা যায়, ঈশ্বরের লোকদের জন্য বিশ্রামের সুযোগ আছে, 10কারণ ঈশ্বর যেমন তাঁর সৃষ্টির কাজ শেষ করে বিশ্রাম নিয়েছিলেন ঠিক তেমনি যে লোক ঈশ্বরের দেওয়া বিশ্রামের জায়গায় যায়, সেও তার কাজ থেকে বিশ্রাম পায়। 11এইজন্য এস, আমরা সেই বিশ্রাম পাবার জন্য বিশেষভাবে আগ্রহী হই। কেউ যেন সেই অবাধ্য ইস্রায়েলীয়দের মত ঈশ্বরকে অমান্য করে তাঁর দেওয়া বিশ্রাম থেকে বাদ না পড়ে। 12ঈশ্বরের বাক্য জীবন্ত ও কার্যকর এবং দু’দিকেই ধার আছে এমন ছোরার চেয়েও ধারালো। এই বাক্য মানুষের অন্তর-আত্মা ও অস্থি-মজ্জার গভীরে কেটে বসে এবং মানুষের অন্তরের সমস্ত ইচ্ছা ও চিন্তা পরীক্ষা করে দেখে। 13সৃষ্টির কিছুই ঈশ্বরের কাছে লুকানো নেই। যাঁর কাছে আমাদের হিসাব দিতে হবে তাঁর চোখের সামনে সব কিছুই খোলা এবং প্রকাশিত। 14এইজন্য এস, আমরা খোলাখুলিভাবে ঈশ্বরের পুত্র যীশুর উপর আমাদের বিশ্বাসকে স্বীকার করে যাই, কারণ তিনিই আমাদের মহান মহাপুরোহিত যিনি স্বর্গে গিয়ে এখন ঈশ্বরের সামনে আছেন। 15আমাদের মহাপুরোহিত এমন কেউ নন যিনি আমাদের দুর্বলতার জন্য আমাদের সংগে ব্যথা পান না, কারণ আমাদের মত করে তিনিও সব দিক থেকেই পাপের পরীক্ষার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন অথচ পাপ করেন নি। 16সেইজন্য এস, আমরা সাহস করে ঈশ্বরের দয়ার সিংহাসনের সামনে এগিয়ে যাই, যেন দরকারের সময় সেখান থেকে আমরা তাঁর করুণা ও দয়া পেতে পারি।

will be added

X\