Ezekiel 48

1তারপর সদাপ্রভু বললেন, “গোষ্ঠী অনুসারে দেশের জমিজমার ভাগ এইভাবে হবে। দেশের উত্তর সীমায় দান একটা অংশ পাবে; সেটা ভূমধ্য সাগর থেকে হিৎলোনের রাস্তা বরাবর লেবো-হমাৎ পর্যন্ত যাবে; সেখান থেকে যাবে পূর্ব দিকে দামেস্কের উত্তর সীমার পাশে হৎসোর-ঐনন পর্যন্ত, অর্থাৎ হমাতের সীমানা পর্যন্ত। 2আশের একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে দানের সীমানার দক্ষিণে। 3নপ্তালি একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে আশেরের সীমানার দক্ষিণে। 4মনঃশি একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে নপ্তালির সীমানার দক্ষিণে। 5ইফ্রয়িম একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে মনঃশির সীমানার দক্ষিণে। 6রূবেণ একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে ইফ্রয়িমের সীমানার দক্ষিণে। 7যিহূদা একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে রূবেণের সীমানার দক্ষিণে। 8“যিহূদার সীমানার দক্ষিণে পূর্ব থেকে পশ্চিম পর্যন্ত থাকবে সেই জায়গাটা যা তোমরা বিশেষ কাজের জন্য আলাদা করে রাখবে। সেটা চওড়ায় হবে পঁচিশ হাজার মাপকাঠি এবং লম্বায় হবে অন্যান্য গোষ্ঠীর অংশের মত দেশের পূর্ব সীমানা থেকে পশ্চিম সীমানা পর্যন্ত; সেই জায়গার মাঝখানে থাকবে উপাসনা-ঘর। 9সেই আলাদা করা জায়গা থেকে তোমরা একটা বিশেষ অংশ সদাপ্রভুকে দেবে; সেটা লম্বায় হবে পঁচিশ হাজার মাপকাঠি আর চওড়ায় দশ হাজার মাপকাঠি। 10এটা হবে পুরোহিতদের জন্য পবিত্র অংশ। উত্তর ও দক্ষিণ দিকে এটা হবে পঁচিশ হাজার মাপকাঠি লম্বা এবং পশ্চিম ও পূর্ব দিকে দশ হাজার মাপকাঠি চওড়া। তার মাঝখানে থাকবে সদাপ্রভুর ঘর। 11এই বিশেষ অংশটা হবে আমার উদ্দেশ্যে আলাদা করা সাদোকের বংশের পুরোহিতদের জন্য। তারা আমার সেবায় বিশ্বস্ত ছিল এবং ইস্রায়েলীয়দের সংগে বিপথে যাওয়া লেবীয়দের মত তারা বিপথে যায় নি। 12এটা হবে দেশের পবিত্র অংশ থেকে তাদের জন্য একটা বিশেষ অংশ; এই অংশ থাকবে লেবীয়দের অংশের সীমানার পাশে, আর এটা হবে মহা পবিত্র জায়গা। 13“পুরোহিতদের সীমানার পাশে লেবীয়েরা পঁচিশ হাজার মাপকাঠি লম্বা ও দশ হাজার মাপকাঠি চওড়া একটা জায়গা পাবে। 14লেবীয়েরা সেই জমি বিক্রি করতে কিম্বা তার অংশ বদল করতে পারবে না। সেটা সবচেয়ে ভাল জমি এবং তা অন্যদের হাতে দিয়ে দেওয়া চলবে না, কারণ সেটা সদাপ্রভুর উদ্দেশে পবিত্র। 15“বাকী পাঁচ হাজার মাপকাঠি চওড়া ও পঁচিশ হাজার মাপকাঠি লম্বা এলাকাটা শহরের সাধারণ কাজের জন্য, অর্থাৎ বাড়ী-ঘর ও পশু চরাবার জন্য ব্যবহার করা হবে। শহরটা তার মাঝখানে থাকবে; 16আর সেই শহরের চারদিকের মাপ হবে চার হাজার পাঁচশো মাপকাঠি করে। 17শহরের চারদিকে পশু চরাবার জায়গা থাকবে দু’শো পঞ্চাশ মাপকাঠি করে। 18এই শহরের পূর্ব পাশের দশ হাজার মাপকাঠি এবং পশ্চিম পাশের দশ হাজার মাপকাঠি জায়গায় যে ফসল জন্মাবে তা শহরের কর্মচারীদের খাবার হবে। 19ইস্রায়েলের সমস্ত গোষ্ঠী থেকে যারা এই শহরে কাজ করবে তারা এই জমি চাষ করবে। 20সেই আলাদা করা পুরো জায়গাটা হবে পঁচিশ হাজার মাপকাঠি করে একটা চৌকো জায়গা। এই জায়গার মধ্যে থাকবে সেই পবিত্র অংশ এবং শহর ও তার আশেপাশের জায়গা। 21“সেই আলাদা করা জায়গাটার পূর্ব এবং পশ্চিম পাশের জায়গা থাকবে শাসনকর্তার জন্য। এই দু’টা জায়গার উত্তর-দক্ষিণের মাপ আলাদা করা জায়গার মত পঁচিশ হাজার মাপকাঠি হবে। এই দুই জায়গা দেশের পূর্ব ও পশ্চিম সীমানা পর্যন্ত যাবে। এইভাবে শাসনকর্তার জায়গার মাঝখানে থাকবে উপাসনা-ঘর সুদ্ধ পুরোহিতদের জায়গা, লেবীয়দের জায়গা এবং শহরের জায়গা। শাসনকর্তার এই জায়গাটা উত্তরে যিহূদা ও দক্ষিণে বিন্যামীনের জায়গার সীমানার মাঝখানে থাকবে। 23“বাকী গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে বিন্যামীন একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে আলাদা করা জায়গার দক্ষিণে। 24শিমিয়োন একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে বিন্যামীনের সীমানার দক্ষিণে। 25ইষাখর একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে শিমিয়োনের সীমানার দক্ষিণে। 26সবূলূন একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে ইষাখরের সীমানার দক্ষিণে। 27গাদ একটা অংশ পাবে; সেটা হবে পূর্ব থেকে পশ্চিমে সবূলূনের সীমানার দক্ষিণে। 28গাদের অংশের দক্ষিণের সীমানা হল দেশের দক্ষিণের সীমানা। তা তামর থেকে কাদেশের মরীবৎ জল পর্যন্ত গিয়ে মিসরের শুকনা নদী বরাবর ভূমধ্য সাগর পর্যন্ত চলে যাবে। 29এই দেশ ইস্রায়েলের গোষ্ঠীগুলোকে সম্পত্তি হিসাবে তোমরা ভাগ করে দেবে, আর এগুলোই হবে তাদের অংশ। আমি প্রভু সদাপ্রভু এই কথা বলছি। 30“শহর থেকে বাইরে যাবার কতগুলো ফটক থাকবে। ইস্রায়েলের গোষ্ঠীগুলোর নাম অনুসারেই সেই ফটকগুলোর নাম দেওয়া হবে। সাড়ে চার হাজার মাপকাঠির উত্তর দিকের দেয়ালে তিনটা ফটক থাকবে। সেগুলোর নাম হবে রূবেণ-ফটক, যিহূদা-ফটক ও লেবি-ফটক। 32সাড়ে চার হাজার মাপকাঠির পূর্ব দিকের দেয়ালের তিনটা ফটকের নাম হবে যোষেফ-ফটক, বিন্যামীন-ফটক ও দান-ফটক। 33সাড়ে চার হাজার মাপকাঠির দক্ষিণ দিকের দেয়ালের তিনটা ফটকের নাম হবে শিমিয়োন-ফটক, ইষাখর-ফটক ও সবূলূন-ফটক। 34সাড়ে চার হাজার মাপকাঠির পশ্চিম দিকের দেয়ালের তিনটা ফটকের নাম হবে গাদ-ফটক, আশের-ফটক ও নপ্তালি-ফটক। 35শহরের চারপাশের দেয়ালের মাপ হবে আঠারো হাজার মাপকাঠি। সেই সময় থেকে শহরের নাম হবে, ‘সদাপ্রভু এখানে আছেন।’ ”

will be added

X\