Exodus 19

1মিসর দেশ থেকে বের হয়ে আসবার পরে তৃতীয় মাসে ইস্রায়েলীয়েরা সিনাই মরু-এলাকায় গিয়ে পৌঁছাল। 2তারা রফীদীম ছেড়ে এসে সিনাই পাহাড়ের সামনে সিনাই মরু-এলাকায় ছাউনি ফেলল। 3পরে মোশি পাহাড়ের উপরে ঈশ্বরের কাছে উঠে গেলেন। সেই সময় সদাপ্রভু পাহাড়ের উপর থেকে তাঁকে ডেকে বললেন, “তুমি যাকোবের বংশধর ইস্রায়েলীয়দের বল যে, 4তারা নিজেরাই দেখেছে, মিসরীয়দের দশা আমি কি করেছি। ঈগল পাখীর ডানায় বয়ে নেবার মত করে আমি ইস্রায়েলীয়দের নিজের কাছে নিয়ে এসেছি। 5সেইজন্য যদি তারা আমার সব কথা মেনে চলে এবং আমার ব্যবস্থা পালন করে তবে পৃথিবীর সব জাতির মধ্য থেকে তারাই হবে আমার নিজের বিশেষ সম্পত্তি, কারণ দুনিয়ার সব লোকই আমার অধিকারে। 6আমার এই লোকদের দিয়েই গড়া হবে আমার পুরোহিতদের রাজ্য এবং এই জাতিই হবে আমার উদ্দেশ্যে আলাদা করা জাতি। এই কথাগুলো তুমি ইস্রায়েলীয়দের জানিয়ে দাও।” 7তখন মোশি নেমে এসে ইস্রায়েলীয় বৃদ্ধ নেতাদের ডেকে একত্র করলেন এবং সদাপ্রভু তাঁকে যে সব কথা বলতে বলেছিলেন তা সবই তাঁদের বললেন। 8এই কথা শুনে সব লোক একসংগে বলল, “সদাপ্রভু যা বলেছেন আমরা তা সবই করব।” লোকেরা যা বলল মোশি গিয়ে তা সদাপ্রভুকে জানালেন। 9এর পর সদাপ্রভু মোশিকে বললেন, “আমি তোমার সংগে যখন কথা বলব তখন লোকেরা যাতে তা শুনতে পায় সেইজন্য আমি একটা ঘন মেঘের মধ্যে থেকে তোমাদের কাছে আসব। তাহলে লোকেরা সব সময় তোমার উপর সম্পূর্ণ বিশ্বাস রাখবে।” লোকেরা যা বলেছিল মোশি পরে তা সদাপ্রভুকে বললেন। 10সদাপ্রভু মোশিকে আরও বললেন, “আজ ও কাল এই দু’দিন তুমি লোকদের কাছে গিয়ে তাদের শুচি করবে। তারা যেন তাদের কাপড়-চোপড় ধুয়ে নেয় এবং তৃতীয় দিনের জন্য প্রস্তুত থাকে, কারণ এই তৃতীয় দিনে আমি সদাপ্রভু সমস্ত লোকের চোখের সামনে সিনাই পাহাড়ের উপর নেমে আসব। 12লোকদের জন্য তুমি পাহাড়ের চারদিকে একটা সীমানা ঠিক করে দেবে এবং তাদের সাবধান করে দিয়ে বলবে, যেন তারা পাহাড়ের উপর না আসে কিম্বা পাহাড়ের গায়ে হাত না দেয়। যে ঐ পাহাড় ছোঁবে তাকে নিশ্চয়ই মেরে ফেলা হবে। 13তবে তার গায়ে হাত না দিয়ে তাকে পাথর মেরে কিম্বা তীর দিয়ে মেরে ফেলতে হবে। মানুষ হোক বা পশু হোক তাকে আর বেঁচে থাকতে দেওয়া হবে না। কেবলমাত্র একটানা কতক্ষণ শিঙা বাজাবার পরই তারা পাহাড়ের কাছে আসতে পারবে।” 14এর পর মোশি পাহাড় থেকে নেমে এসে লোকদের শুচি করলেন আর লোকেরা তাদের কাপড়-চোপড় ধুয়ে নিল। 15তারপর মোশি তাদের বললেন, “তৃতীয় দিনের জন্য তোমরা প্রস্তুত হও। এই সময়ের মধ্যে তোমরা কেউ স্ত্রীর সংগে মিলিত হবে না।” 16তৃতীয় দিনের সকালবেলা মেঘের গর্জন হতে লাগল এবং বিদ্যুৎ চম্‌কাতে থাকল আর পাহাড়ের উপরে একখণ্ড ঘন মেঘ দেখা দিল। এছাড়া খুব জোরে জোরে শিঙার আওয়াজ হতে লাগল। এই সব দেখেশুনে ছাউনির মধ্যেকার সমস্ত লোক কেঁপে উঠল। 17তখন ঈশ্বরের সামনে যাবার জন্য মোশি ছাউনি থেকে লোকদের বের করে নিয়ে গেলেন। লোকেরা পাহাড়ের নীচে গিয়ে দাঁড়িয়ে রইল। 18তারপর সিনাই পাহাড়টা ধূমায় ঢেকে গেল, কারণ সদাপ্রভু পাহাড়ের উপর আগুনের মধ্যে নেমে আসলেন। চুল্লী থেকে যেমন ধূমা ওঠে ঠিক সেইভাবে ধূমা উঠতে লাগল আর গোটা পাহাড়টা ভীষণভাবে কাঁপতে লাগল। 19শিঙার আওয়াজ আরও জোরে জোরে হতে লাগল। তখন মোশি ঈশ্বরের সংগে কথা বললেন আর ঈশ্বরও জোরে কথা বলে তাঁর উত্তর দিলেন। 20সদাপ্রভু সিনাই পাহাড়ের চূড়ায় নেমে এসে মোশিকে ডাকলেন আর মোশি পাহাড়ের উপর উঠে গেলেন। 21সদাপ্রভু মোশিকে বললেন, “তুমি নীচে নেমে গিয়ে লোকদের সাবধান করে দাও যেন তারা সদাপ্রভুকে দেখবার জন্য সীমানা ডিংগিয়ে চলে না আসে। তা করলে অনেকেই মারা পড়বে। 22এমন কি, সদাপ্রভুর কাছে যাওয়াই যাদের কাজ, সেই পুরোহিতদেরও নিজেদের শুচি করে নিতে হবে। তা না করলে সদাপ্রভু তাদের ভীষণ শাস্তি দেবেন।” 23উত্তরে মোশি সদাপ্রভুকে বললেন, “কিন্তু লোকেরা তো সিনাই পাহাড়ের উপর আসতে পারবে না। তুমিই তো আমাদের সাবধান করে বলে দিয়েছ, যেন আমরা পাহাড়ের চারদিকে সীমানা-চিহ্ন দিয়ে তা তোমার জন্য আলাদা করে রাখি।” 24তখন সদাপ্রভু মোশিকে বললেন, “তুমি নীচে নেমে যাও। তারপর তুমি ও হারোণ আবার উপরে উঠে এসো। কিন্তু পুরোহিতেরা বা লোকেরা যেন সীমানা ডিংগিয়ে আমার কাছে উঠে না আসে। তা করলে আমি তাদের ভীষণ শাস্তি দেব।” 25এই কথা শুনে মোশি নেমে গিয়ে সব কথা লোকদের জানালেন।

will be added

X\