Deuteronomy 11

1“তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভাল-বাসবে আর তিনি যা চান তা করবে এবং তাঁর নিয়ম, নির্দেশ ও আদেশ সব সময় পালন করবে। 2আজ তোমরা মনে রেখো যে, আমি এই সব কথা তোমাদেরই বলছি, তোমাদের ছেলেমেয়েদের কাছে বলছি না, কারণ তারা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর গড়ে তুলবার কাজ জানেও নি দেখেও নি। তারা তাঁর মহিমা এবং তাঁর বাড়িয়ে দেওয়া কঠোর ও শক্তিশালী হাত দেখে নি। 3মিসরের মধ্যে মিসরের রাজা ফরৌণ ও তাঁর সারা দেশের উপর তিনি যে সব চিহ্ন কাজ এবং অন্যান্য কাজ করেছিলেন তা-ও তারা দেখে নি। 4মিসরীয় সৈন্যদল, তাদের ঘোড়া ও রথগুলোর প্রতি তিনি যা করেছিলেন এবং তারা যখন তোমাদের পিছনে তাড়া করে আসছিল তখন কেমন করে তিনি লোহিত সাগরের জলে তাদের ডুবিয়ে দিয়েছিলেন আর কেমন করে তাদের সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিয়েছিলেন তা-ও তারা দেখে নি। 5তোমরা এখানে এসে না পৌঁছানো পর্যন্ত তিনি মরু-এলাকায় তোমাদের জন্য যা করেছিলেন তা-ও তোমাদের ছেলেমেয়েরা দেখে নি। 6তিনি রূবেণ-গোষ্ঠীর ইলীয়াবের ছেলে দাথন ও অবীরামের প্রতি যা করেছিলেন, অর্থাৎ যেভাবে সমস্ত ইস্রায়েলীয়দের মাঝখানে পৃথিবী মুখ খুলে তাদের ও তাদের পরিবারের লোকজন, তাদের তাম্বু এবং তাদের সমস্ত জীবন্ত প্রাণীকে গিলে ফেলেছিল তা-ও তারা দেখে নি। 7কিন্তু সদাপ্রভুর এই সব বড় বড় কাজ তোমরাই নিজেদের চোখে দেখেছ। 8“কাজেই যে দেশ দখল করবার জন্য তোমরা যর্দন নদী পার হয়ে যাচ্ছ সেখানে গিয়ে যেন তা দখল করবার শক্তি পাও এবং সদাপ্রভু তোমাদের পূর্বপুরুষ ও তাদের বংশধরদের কাছে দুধ আর মধুতে ভরা যে দেশ দেবার প্রতিজ্ঞা করেছিলেন সেখানে অনেক দিন বাঁচতে পার সেইজন্য আজ আমি তোমাদের যে সব আদেশ দিচ্ছি তা পালন করবে। 10তোমরা যে দেশটা দখল করতে যাচ্ছ সেটা মিসর দেশের মত নয় যেখান থেকে তোমরা এসেছ। তোমরা সেখানে বীজ বুনতে, আর সব্‌জী ক্ষেতে যেমন করা হয় তেমনি করে সেখানে পা দিয়ে জল সেচের কাজ করতে। 11কিন্তু যর্দন নদী পার হয়ে যে দেশটা তোমরা দখল করতে যাচ্ছ সেটা পাহাড় আর উপত্যকায় ভরা; সেই দেশ জল পায় আকাশ থেকে। 12সেই দেশের দেখাশোনা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুই করেন। বছরের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সব সময় তাঁর চোখ সেই দেশের উপর রয়েছে। 13“কাজেই তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভালবাসা ও সমস্ত মন-প্রাণ দিয়ে তাঁর সেবা করবার যে আদেশ আজ আমি তোমাদের দিলাম তা তোমরা বিশ্বস্তভাবে পালন করবে। 14তা করলে সদাপ্রভু সময়মত, অর্থাৎ শরৎ ও বসন্তকালে তোমাদের দেশের উপর বৃষ্টি দেবেন যার ফলে তোমরা প্রচুর শস্য, নতুন আংগুর-রস ও তেল পাবে। 15সদাপ্রভু তোমাদের পশুপালের জন্য মাঠে ঘাস হতে দেবেন। তা ছাড়া তোমরাও প্রাণ ভরে খেতে পাবে। 16“তোমরা কিন্তু সতর্ক থেকো, তা না হলে তোমরা ছলনায় পড়ে সদাপ্রভুর কাছ থেকে সরে যাবে এবং দেব-দেবতার সেবা ও পূজা করবে। 17এতে তোমাদের উপর সদাপ্রভুর ক্রোধের আগুন জ্বলে উঠবে এবং তিনি আকাশের দরজা বন্ধ করে দেবেন, যার ফলে বৃষ্টিও হবে না এবং জমিতে ফসলও হবে না। যে চমৎকার দেশটা সদাপ্রভু তোমাদের দিচ্ছেন সেখান থেকে তোমরা অল্প সময়ের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে। 18তোমাদের অন্তর ও মনে আমার এই কথাগুলো গেঁথে রাখবে, তা মনে রাখবার চিহ্ন হিসাবে হাতে বেঁধে রাখবে এবং কপালে লাগিয়ে রাখবে। 19তোমাদের ছেলেমেয়েদের সেগুলো শিখাবে। ঘরে বসে থাকবার সময়, পথে চলবার সময়, শোবার সময় এবং বিছানা থেকে উঠবার সময় তোমরা এই সব বিষয় নিয়ে আলোচনা করবে। 20তোমাদের বাড়ীর দরজার চৌকাঠে এবং ফটকে তোমরা সেগুলো লিখে রাখবে। 21যদি তোমরা এই সব কর তবে যে দেশ দেবার শপথ সদাপ্রভু তোমাদের পূর্বপুরুষদের কাছে করেছিলেন সেই দেশে তোমরা ও তোমাদের ছেলেমেয়েরা ততকাল বেঁচে থাকবে যতকাল এই পৃথিবীর উপর মহাকাশ থাকবে। 22“তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভালবাসবার, তাঁর পথে চলবার এবং তাঁকে আঁকড়ে ধরে রাখবার এই যে সব আদেশ আমি তোমাদের দিলাম তা তোমরা যত্নের সংগে পালন করবে। 23তা করলে সদাপ্রভুই তোমাদের সামনে থেকে ঐ সব জাতিগুলোকে বের করে দেবেন, আর তোমরা তোমাদের চেয়েও বড় বড় এবং শক্তিশালী জাতিকে বেদখল করবে। 24দক্ষিণের মরু-এলাকা থেকে লেবানন পর্যন্ত এবং ইউফ্রেটিস নদী থেকে ভুমধ্য সাগর পর্যন্ত তোমরা যেখানে পা ফেলবে সেই জায়গাই তোমাদের হবে। 25কোন লোকই তোমাদের সামনে দাঁড়াতে পারবে না। তোমরা সেই দেশের যেখানেই যাবে তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তাঁর প্রতিজ্ঞা অনুসারে সেখানকার লোকদের মনে তোমাদের সম্বন্ধে একটা ভয়ের ভাব ও কাঁপুনি ধরিয়ে দেবেন। 26“দেখ, আজ আমি তোমাদের সামনে একটা আশীর্বাদ ও একটা অভিশাপ তুলে ধরছি। 27আজ আমি তোমাদের কাছে তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর যে আদেশগুলো দিলাম তা যদি তোমরা পালন কর, তবে এই আশীর্বাদ তোমাদের হবে। 28কিন্তু যদি তোমরা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর আদেশ অমান্য কর এবং যে পথে চলবার আদেশ আমি আজ দিয়েছি তা থেকে সরে গিয়ে তোমাদের কাছে নতুন এমন দেব-দেবতার পিছনে যাও, তবে তোমাদের উপর অভিশাপ পড়বে। 29দখল করবার জন্য তোমরা যে দেশে ঢুকতে যাচ্ছ তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু যখন সেই দেশে তোমাদের নিয়ে যাবেন তখন গরিষীম পাহাড়ের উপর থেকে সেই আশীর্বাদের কথা তোমরা ঘোষণা করবে আর অভিশাপের কথা ঘোষণা করবে এবল পাহাড়ের উপর থেকে। 30তোমরা তো জান, যর্দন নদীর পশ্চিম দিকের রাস্তার পশ্চিমে গিল্‌গলের কাছাকাছি অরাবার বাসিন্দা কনানীয়দের দেশের মধ্যে মোরির এলোন গাছগুলোর কাছে ঐ পাহাড় দু’টা রয়েছে। 31তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু যে দেশ তোমাদের দিতে যাচ্ছেন সেই দেশ দখল করবার জন্য তোমরা যর্দন নদী পার হতে যাচ্ছ। তোমরা যখন তা দখল করে সেখানে বাস করতে থাকবে তখন আজ আমি তোমাদের যে সব নিয়ম ও নির্দেশ দিলাম তা অবশ্যই তোমরা পালন করে চলবে।

will be added

X\