প্রেরিত 11

1অযিহূদীরাও যে ঈশ্বরের বাক্যে বিশ্বাস করেছে সেই কথা প্রেরিতেরা এবং সমস্ত যিহূদিয়ার বিশ্বাসী ভাইয়েরা শুনলেন। 2এইজন্য পিতর যখন যিরূশালেমে আসলেন তখন সেই বিশ্বাসীদের মধ্যে যারা সুন্নত করানো ছিল তারা তাঁকে দোষ দিয়ে বলল, 3“আপনি সুন্নত-না-করানো লোকদের ঘরে গিয়ে তাদের সংগে খাওয়া-দাওয়া করেছেন।” 4তখন পিতর প্রথম থেকে আরম্ভ করে যা যা ঘটেছিল তা এক এক করে বুঝিয়ে বললেন, 5“আমি যাফো শহরে প্রার্থনা করছিলাম, এমন সময় তন্দ্রার মত অবস্থায় পড়ে একটা দর্শন পেলাম। আমি দেখলাম বড় চাদরের মত কি একটা জিনিস চার কোণা ধরে আকাশ থেকে আমার কাছে নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে। 6আমি ভাল করে তাকিয়ে দেখলাম তার মধ্যে নানা রকম পশু, বুনো জানোয়ার, বুকে-হাঁটা প্রাণী এবং পাখী আছে। 7পরে আমি শুনলাম কেউ যেন বলছেন, ‘পিতর, ওঠো, মেরে খাও।’ 8“আমি বললাম, ‘না, না, প্রভু, কিছুতেই না। অপবিত্র বা অশুচি কোন কিছু কখনও আমি মুখে দিই নি।’ 9“এর পরে স্বর্গ থেকে দ্বিতীয় বার বলা হল, ‘ঈশ্বর যা শুচি করেছেন তাকে তুমি অপবিত্র বোলো না।’ 10এই রকম তিনবার হল, তার পরে সব কিছু আবার আকাশে তুলে নেওয়া হল। 11“এর প্রায় সংগে সংগে আমি যে বাড়ীতে ছিলাম সেই বাড়ীতে তিনজন লোক এসে দাঁড়াল। কৈসরিয়া থেকে তাদের পাঠানো হয়েছিল। 12তখন পবিত্র আত্মা আমাকে কোন সন্দেহ না করে তাদের সংগে যেতে বললেন। এই ছয়জন ভাইও আমার সংগে গিয়েছিলেন। পরে আমরা সেই লোকের বাড়ীতে ঢুকলাম যিনি আমাকে ডেকে পাঠিয়েছিলেন। 13তিনি একজন স্বর্গদূতকে কেমন ভাবে তাঁর বাড়ীতে দেখেছিলেন তা আমাদের বললেন। সেই স্বর্গদূত তাঁকে বলেছিলেন, ‘শিমোন, যাকে পিতরও বলা হয়, তাকে ডেকে আনতে তুমি যাফো শহরে লোক পাঠাও। 14সে তোমার কাছে যে কথা বলবে সেই কথার দ্বারা তুমি ও তোমার পরিবারের সমস্ত লোক পাপ থেকে উদ্ধার পাবে।’ 15“পবিত্র আত্মা যেভাবে প্রথমে আমাদের উপরে এসেছিলেন আমি কথা বলতে আরম্ভ করলে পর ঠিক সেইভাবে তাদেরও উপরে আসলেন। 16তখন প্রভু যা বলেছিলেন সেই কথা আমার মনে পড়ল, ‘যোহন জলে বাপ্তিস্ম দিতেন, কিন্তু তোমাদের বাপ্তিস্ম হবে পবিত্র আত্মাতে।’ 17তাহলে প্রভু যীশু খ্রীষ্টের উপর বিশ্বাস করলে পর ঈশ্বর আমাদের যে দান দিয়েছিলেন সেই একই দান যখন তিনি তাদেরও দিলেন তখন আমি কে যে, ঈশ্বরকে বাধা দিতে পারি?” 18এই কথা শুনে যিহূদিয়ার বিশ্বাসীরা আর আপত্তি না করে ঈশ্বরের গৌরব করে বলল, “তাহলে ঈশ্বর অযিহূদীদেরও জীবন পাবার জন্য পাপ থেকে মন ফিরাতে সুযোগ দিলেন।” 19স্তিফানকে কেন্দ্র করে বিশ্বাসীদের উপর অত্যাচারের দরুন যারা ছড়িয়ে পড়েছিল তারা ফৈনীকিয়া, সাইপ্রাস ও সিরিয়া দেশের আন্তিয়খিয়া পর্যন্ত গিয়ে কেবল যিহূদীদের কাছেই ঈশ্বরের বাক্য বলল। 20কিন্তু তাদের মধ্যে কয়েকজন আন্তিয়খিয়াতে গিয়ে গ্রীক ভাষায় কথা বলা লোকদের কাছেও প্রভু যীশুর বিষয়ে সুখবর প্রচার করতে লাগল। এরা ছিল সাইপ্রাস দ্বীপ ও কুরীণী শহরের লোক। 21ঈশ্বরের শক্তি তাদের উপর ছিল বলে অনেক লোক প্রভুর উপর বিশ্বাস করে তাঁর দিকে ফিরল। 22এই খবর যিরূশালেমের মণ্ডলীর লোকদের কানে গেলে পর তারা বার্ণবাকে আন্তিয়খিয়াতে পাঠিয়ে দিল। 23ঈশ্বর যে কিভাবে আন্তিয়খিয়ার লোকদের দয়া করেছেন বার্ণবা এসে তা দেখে খুব আনন্দিত হলেন। তারা যেন সমস্ত অন্তর দিয়ে প্রভুর কাছে বিশ্বস্ত থাকে সেইজন্য তিনি তাদের সকলকে উৎসাহ দিতে লাগলেন। 24বার্ণবা একজন ভাল লোক ছিলেন এবং তিনি পবিত্র আত্মাতে ও বিশ্বাসে পূর্ণ ছিলেন। তখন প্রভু অনেককেই তাঁর নিজের কাছে নিয়ে এসেছিলেন। 25এর পরে বার্ণবা শৌলের খোঁজে তার্ষ শহরে গেলেন, 26আর তাঁকে খুঁজে পেয়ে আন্তিয়খিয়াতে আনলেন। বার্ণবা আর শৌল এক বছর পর্যন্ত মণ্ডলীর লোকদের সংগে মিলিত হয়ে অনেক লোককে শিক্ষা দিলেন। আন্তিয়খিয়াতেই খ্রীষ্টের শিষ্যদের খ্রীষ্টিয়ান নামে প্রথম ডাকা হল। 27এর মধ্যে কয়েকজন নবী যিরূশালেম থেকে আন্তিয়খিয়াতে আসলেন। 28তাঁদের মধ্যে আগাব নামে একজন উঠে দাঁড়িয়ে পবিত্র আত্মার পরিচালনায় বললেন যে, সারা রোম সাম্রাজ্যে এক ভীষণ দুর্ভিক্ষ হবে। (সম্রাট ক্লৌদিয়ের রাজত্বের সময়ে সেই কথা পূর্ণ হয়েছিল।) 29তখন শিষ্যেরা ঠিক করল, যিহূদিয়া প্রদেশের বিশ্বাসী ভাইদের সাহায্যের জন্য তারা প্রত্যেকে নিজের নিজের সাধ্য অনুসারে টাকা পাঠাবে। তারা তা করেছিল। 30তারা বার্ণবা ও শৌলের হাতে যিহূদিয়ার মণ্ডলীগুলোর বৃদ্ধ নেতাদের কাছে সেই সাহায্য পাঠিয়ে দিয়েছিল।

will be added

X\