2 Samuel 2

1পরে দায়ূদ সদাপ্রভুর কাছে জিজ্ঞাসা করলেন, “আমি কি যিহূদা এলাকার কোন একটা শহরে চলে যাব?” সদাপ্রভু বললেন, “হ্যাঁ, যাও।” দায়ূদ জিজ্ঞাসা করলেন, “আমি কোথায় যাব?” উত্তরে সদাপ্রভু বললেন, “হিব্রোণে যাও।” 2তখন দায়ূদ তাঁর দুই স্ত্রীকে, অর্থাৎ যিষ্রিয়েলের অহীনোয়ম ও কর্মিলের নাবলের বিধবা অবীগলকে নিয়ে হিব্রোণে গেলেন। 3যে সব লোক তাঁর সংগে সংগে থাকত তিনি পরিবার সুদ্ধ তাদেরও নিয়ে গেলেন। তারা হিব্রোণের গ্রামগুলোতে বাস করতে লাগল। 4তখন যিহূদার লোকেরা হিব্রোণে এসে দায়ূদকে যিহূদা-গোষ্ঠীর লোকদের রাজা হিসাবে অভিষেক করল। লোকেরা দায়ূদকে এই খবর দিল যে, যাবেশ-গিলিয়দের লোকেরাই শৌলকে কবর দিয়েছে। 5তখন তিনি লোক পাঠিয়ে যাবেশ-গিলিয়দের লোকদের এই কথা বললেন, “আপনারা যে আপনাদের মনিব শৌলকে কবর দিয়ে তাঁর প্রতি বিশ্বস্ততা দেখিয়েছেন সেইজন্য সদাপ্রভু যেন আপনাদের আশীর্বাদ করেন। 6তিনি যেন এখন তাঁর অটল ভালবাসা ও বিশ্বস্ততা আপনাদের দেখান, আর আপনাদের সেই কাজের জন্য আমিও আপনাদের সংগে ভাল ব্যবহার করব। 7কাজেই এখন আপনারা শক্ত হন ও বুকে সাহস রাখুন। আপনাদের মনিব শৌল মারা গেছেন এবং যিহূদা-গোষ্ঠীর লোকেরা আমাকে তাদের উপর রাজা হিসাবে অভিষেক করেছে।” 8এই সময়ের মধ্যে শৌলের সৈন্যদলের সেনাপতি নেরের ছেলে অব্‌নের শৌলের ছেলে ঈশ্‌বোশত্‌কে যর্দন নদীর ওপারে মহনয়িমে নিয়ে গিয়েছিলেন। 9তিনি ঈশ্‌বোশত্‌কে গিলিয়দ, অশূর, যিষ্রিয়েল, ইফ্রয়িম, বিন্যামীন, এমন কি, সমস্ত ইস্রায়েল দেশের উপর রাজা করেছিলেন। 10শৌলের ছেলে ঈশ্‌বোশৎ চল্লিশ বছর বয়সে ইস্রায়েল দেশের রাজা হয়েছিলেন এবং দু’বছর রাজত্ব করেছিলেন। কিন্তু যিহূদা-গোষ্ঠীর লোকেরা দায়ূদের অধীনে ছিল। 11দায়ূদ হিব্রোণে থেকে যিহূদা-গোষ্ঠীর উপর সাড়ে সাত বছর রাজত্ব করেছিলেন। 12এক দিন নেরের ছেলে অব্‌নের শৌলের ছেলে ঈশ্‌বোশতের লোকদের নিয়ে মহনয়িম থেকে গিবিয়োনে গেলেন। 13তখন সরূয়ার ছেলে যোয়াব ও দায়ূদের লোকেরা বের হয়ে আসলেন। গিবিয়োনের পুকুরের কাছে এই দুই দল সামনাসামনি হল। এক দল বসল পুকুরের এপারে আর অন্য দল বসল পুকুরের ওপারে। 14তখন অব্‌নের যোয়াবকে বললেন, “দু’দলের কয়েকজন যুবক উঠে আমাদের সামনে যুদ্ধ করুক।” যোয়াব বললেন, “বেশ, তা-ই হোক।” 15বিন্যামীন-গোষ্ঠীর ও শৌলের ছেলে ঈশ্‌বোশতের পক্ষ থেকে বারোজনকে আর দায়ূদের পক্ষ থেকে বারোজনকে যুদ্ধ করবার জন্য বেছে নেওয়া হল। 16তখন দুই দলের লোকেরা প্রত্যেকেই একে অন্যের মাথা ধরে পাঁজরে ছোরা ঢুকিয়ে দিল এবং একসংগে মাটিতে পড়ে মারা গেল। সেইজন্য গিবিয়োনের সেই জায়গাটার নাম দেওয়া হল হিল্‌কৎ-হৎসূরীম (যার মানে “ছোরার মাঠ”)। 17সেই দিন এক ভীষণ যুদ্ধ হল আর তাতে অব্‌নের ও ইস্রায়েলের লোকেরা দায়ূদের লোকদের কাছে হেরে গেল। 18যোয়াব, অবীশয় ও অসাহেল নামে সরূয়ার তিন ছেলে সেখানে ছিল। অসাহেল বুনো হরিণের মত জোরে দৌড়াতে পারত। 19সে অব্‌নেরের পিছনে তাড়া করল এবং ডানে-বাঁয়ে না গিয়ে সোজা তাঁর পিছনে পিছনে ছুটল। 20অব্‌নের পিছন ফিরে তাকে জিজ্ঞাসা করলেন, “তুমি কি অসাহেল?” অসাহেল বলল, “হ্যাঁ, ঠিক বলেছেন।” 21তখন অব্‌নের তাকে বললেন, “তুমি ডানে বা বাঁয়ে ফিরে কোন যুবককে হারিয়ে দিয়ে তার যুদ্ধের সাজ-সরঞ্জাম নিয়ে নাও।” কিন্তু অসাহেল তাঁর পিছনে তাড়া করেই চলল। 22অব্‌নের অসাহেলকে আবার বললেন, “থাম, আমাকে তাড়া কোরো না। আমি তোমাকে মেরে ফেলতে চাই না। তা করলে আমি কেমন করে তোমার ভাই যোয়াবকে মুখ দেখাব?” 23অসাহেল তবুও ফিরতে রাজী হল না। তখন অব্‌নের তাঁর বর্শার পিছন দিকটা অসাহেলের পেটের ভিতরে এমনভাবে ঢুকিয়ে দিলেন যে, বর্শাটা তার পিঠ ফুঁড়ে বের হল। অসাহেল সেখানেই পড়ে মারা গেল। অসাহেল যে জায়গায় পড়ে মারা গিয়েছিল যত লোক সেই জায়গায় আসল তারা প্রত্যেকে সেখানে দাঁড়িয়ে রইল, 24কিন্তু যোয়াব ও অবীশয় অব্‌নেরের পিছনে তাড়া করে গেলেন। এইভাবে তাঁরা গিবিয়োনের মরু-এলাকার মধ্য দিয়ে যাবার পথে গীহের সামনে অম্মা পাহাড়ের কাছে উপস্থিত হলেন। তখন সূর্য অস্ত যাচ্ছিল। 25অব্‌নেরের পিছনে তখন বিন্যামীন-গোষ্ঠীর লোকেরা জড়ো হয়েছিল। তারা এক দল হয়ে একটা পাহাড়ের উপরে গিয়ে দাঁড়াল। 26তখন অব্‌নের যোয়াবকে ডেকে বললেন, “তলোয়ার কি চিরকাল গিল্‌তেই থাকবে? শেষে যে সব কিছু তেতো হয়ে উঠবে তা কি তুমি বুঝতে পারছ না? কখন তুমি তোমার লোকদের তাদের ভাইদের পিছনে তাড়া করা বন্ধ করতে হুকুম দেবে?” 27উত্তরে যোয়াব বললেন, “জীবন্ত ঈশ্বরের দিব্য, তুমি কথা না বললেও সকালে লোকেরা তাদের ভাইদের তাড়া করা বন্ধ করত।” 28এই বলে তিনি তূরী বাজালেন। তখন সমস্ত লোক থেমে গেল। তারা আর ইস্রায়েলীয়দের পিছনে তাড়া করল না এবং যুদ্ধও করল না। 29অব্‌নের ও তাঁর লোকেরা সারা রাত অরাবা সমভূমির মধ্য দিয়ে হেঁটে গিয়ে যর্দন নদী পার হল। তারপর বিথ্রোণের মধ্য দিয়ে হেঁটে তারা মহনয়িমে গিয়ে উপস্থিত হল। 30যোয়াব অব্‌নেরের পিছনে তাড়া করা বাদ দিয়ে ফিরে গেলেন। তিনি তাঁর লোকদের জড়ো করলে পর দেখা গেল অসাহেল নেই আর দায়ূদের ঊনিশজন লোক নেই। 31তবে যে বিন্যামীনীয়েরা অব্‌নেরের সংগে ছিল দায়ূদের লোকেরা তাদের তিনশো ষাটজনকে মেরে ফেলেছিল। 32তারা অসাহেলকে তুলে নিয়ে বৈৎলেহমে গেল এবং তার বাবার কবরের মধ্যে তাকে কবর দিল। তারপর যোয়াব ও তাঁর লোকেরা সারা রাত হেঁটে ভোর বেলায় হিব্রোণে গিয়ে পৌঁছাল।

will be added

X\