১ করিন্থীয় 6

1তোমাদের মধ্যে কারও যদি কোন বিশ্বাসী ভাইয়ের বিরুদ্ধে নালিশ করবার কোন কারণ থাকে, তবে সে কোন্‌ সাহসে ঈশ্বরের লোকদের কাছে না গিয়ে যারা ঈশ্বরের নয় তাদের কাছে গিয়ে বিচার চায়? 2তোমরা কি জান না যে, ঈশ্বরের লোকেরাই জগতের বিচার করবে? যখন তোমরা জগতের বিচার করবে তখন তোমরা কি সামান্য বিষয়ের বিচার করতে পার না? 3তোমরা কি জান না আমরা স্বর্গদূতদেরও বিচার করব? তা-ই যদি হয় তবে এই জগতের বিষয় তো সামান্য কথা! 4যদি তোমাদের এই রকম কোন নালিশ থাকে তবে যারা মণ্ডলীর লোক নয় তাদেরই কি তোমরা বিচারক হবার জন্য ঠিক করে থাক? 5তোমাদের লজ্জা দেবার জন্য আমি এই কথা বলছি। তোমাদের মধ্যে সত্যিই কি এমন কোন জ্ঞানী লোক নেই, যে ভাইদের মধ্যে গোলমালের মীমাংসা করে দিতে পারে? 6তার বদলে ভাই কিনা ভাইয়ের বিরুদ্ধে আদালতে যায়, আর তাও আবার অবিশ্বাসীদের সামনে! 7আসলে তোমরা যে একে অন্যের বিরুদ্ধে মামলা-মকদ্দমা করছ তাতে এটাই প্রমাণ হচ্ছে যে, তোমরা হেরে গেছ। তার চেয়ে বরং অন্যায় সহ্য কর না কেন? ঠকে যাও না কেন? 8তার বদলে তোমরাই অন্যায় করছ, তোমরাই ঠকাচ্ছ, আর তা তোমাদের ভাইদের প্রতিই করছ! 9যারা অন্যায় করে তারা যে ঈশ্বরের রাজ্যের অধিকারী হবে না, তা কি তোমরা জান না? তোমরা ভুল কোরো না। যাদের চরিত্র খারাপ, যারা প্রতিমা পূজা করে, যারা ব্যভিচার করে, যারা পুরুষ-বেশ্যা, যে পুরুষেরা সমকামী, 10যারা চোর, লোভী, মাতাল, যারা পরের নিন্দা করে এবং যারা জোচ্চোর তারা ঈশ্বরের রাজ্যের অধিকারী হবে না। 11তোমাদের মধ্যে কেউ কেউ সেই রকমই ছিলে, কিন্তু প্রভু যীশু খ্রীষ্টের মধ্য দিয়ে আর আমাদের ঈশ্বরের আত্মার মধ্য দিয়ে তোমাদের ধুয়ে পরিষ্কার করা হয়েছে, ঈশ্বরের উদ্দেশ্যে আলাদা করা হয়েছে এবং নির্দোষ বলে গ্রহণ করা হয়েছে। 12কেউ কেউ বলে, “কোন কিছু করা আমার পক্ষে অনুচিত নয়।” তা ঠিক, তবে সব কিছুই যে মানুষের উপকার করে, তা নয়। কোন কিছু করা আমার পক্ষে অনুচিত নয় বটে, কিন্তু আমি কোন কিছুরই দাস হব না। 13আবার কেউ কেউ এই কথাও বলে, “খাবার পেটের জন্য আর পেট খাবারের জন্য।” বেশ ভাল কথা, কিন্তু এই দু’টাই একদিন ঈশ্বর বাতিল করে দেবেন। দেহ ব্যভিচার করবার জন্য নয় বরং তা প্রভুরই জন্য, আর প্রভু দেহের জন্য। 14ঈশ্বর তাঁর শক্তির দ্বারা প্রভুকে মুত্যু থেকে জীবিত করেছেন এবং তিনি আমাদেরও জীবিত করবেন। 15তোমরা কি জান না যে, তোমাদের দেহ খ্রীষ্টের দেহের অংশ? তাহলে আমি কি খ্রীষ্টের দেহের অংশ নিয়ে বেশ্যার দেহের সংগে যুক্ত করব? কখনও না। 16তোমরা কি জান না, বেশ্যার সংগে যে যুক্ত হয় সে তার সংগে একদেহ হয়? কারণ শাস্ত্রে লেখা আছে, “তারা দু’জন একদেহ হবে।” 17কিন্তু যে কেউ প্রভুর সংগে যুক্ত হয় সে তাঁর সংগে আত্মাতে এক হয়। 18সমস্ত রকম ব্যভিচার থেকে পালিয়ে যাও। মানুষ অন্য যে সব পাপ করে তা তার দেহের বাইরে করে, কিন্তু যে ব্যভিচার করে সে নিজের দেহের বিরুদ্ধেই পাপ করে। 19তোমরা কি জান না, তোমাদের অন্তরে যিনি বাস করেন এবং যাঁকে তোমরা ঈশ্বরের কাছ থেকে পেয়েছ, সেই পবিত্র আত্মার থাকবার ঘরই হল তোমাদের দেহ? তোমরা তোমাদের নিজেদের নও; 20অনেক দাম দিয়ে তোমাদের কেনা হয়েছে। তাই ঈশ্বরের গৌরবের জন্য তোমাদের দেহ ব্যবহার কর।

will be added

X\